ওয়ান প্লাস ৫ (OnePlus5) স্মার্টফোন রিভিউ

ওয়ান প্লাস ৫ স্মার্টফোন রিভিউ


স্মার্টফোন বাজারে অন্যান্য সকল জায়ান্ট প্রতিষ্ঠানের সাথে প্রতিযোগিতায় ওয়ান প্লাস  স্মার্টফোন ব্র্যান্ড ও রয়েছে অনেক ভালো অবস্থানে । এবং  তাঁদের ওয়ান প্লাস ওয়ান থেকে শুরু করে নতুন ওয়ান প্লাস ৫ (OnePlus5) পর্যন্ত সকল স্মার্টফোনের কোয়ালিটি ও ফিচার গুলোর মাঝেও রয়েছে বিভিন্ন বিশেষত্ব ।

ওয়ান প্লাস ৫

আজ আমরা আপনাদের জন্য ওয়ান প্লাস স্মার্টফোন এর নতুন সিরিজ ওয়ান প্লাস ৫ (OnePlus5) এর রিভিউ উপস্থাপন করবো আশা করি ওয়ান প্লাস ৫ সম্পর্কে আপনার সকল প্রশ্নের উত্তর আমাদের আলোচনায় খুঁজে পাবেন ।

Click To read>>

ওয়ান প্লাস ৫টি রিভিউ (OnePlus5T) – Product Review BD

ওয়ান প্লাস ৩ (One Plus 3) রিভিউ – Product Review BD

চলুন তবে প্রথমেই ওয়ান প্লাস ৫ এর কিছু সুবিধা এবং অসুবিধা  দেখে নেই ।

ওয়ান প্লাস ৫ এর সুবিধা সমুহঃ

  • ফ্যান্টাসটিক সফটওয়্যার পারফর্মেন্স
  • দাম এবং কোয়ালিটি আন্তর্জাতিক মান সম্পন্ন
  • আকর্ষণীয় ড্যাশ চার্জ সিস্টেম
  • ডুয়েল ক্যামেরার অসাধারণ পারফর্মেন্স

ওয়ান প্লাস ৫ এর অসুবিধা সমুহঃ

  • সামান্য কিছু হাই এন্ড ফিচারের অভাব রয়েছে
  • ওয়াইফাই পারফর্মেন্স অন্যান্য স্মার্টফোনের তুলনায় কিছুটা কম

 

অন্যান্য সকল স্মার্টফোনের মতোই ওয়ান প্লাস তাঁদের স্মার্টফোনের মাঝে আরো ভালো মানের ফিচার এবং গ্রাহক চাহিদা মেটানোর সর্বোচ্চ চেস্টা করে চলেছে ।

আশা করা যায় ওয়ান প্লাস এর পরবর্তী স্মার্টফোনের মাঝে হয়তো আমরা আরো ভালো হাই এন্ড ফিচার পাবো ।

যাই হোক চলুন এবার এক পলকে দেখে নেই ওয়ান প্লাস ৫ এর কিছু মুল ফিচার এবং স্পেসিফিকেশন সম্পর্কে ।

 

ওয়ান প্লাস ৫ এর প্রধান ফিচার ও স্পেসিফিকেশন সমুহঃ

ডিসপ্লে ———————————————-5.5-inch 1080p screen

চিপসেট———————————————-Snapdragon 835

র‍্যাম ————————————————6 or 8GB RAM

স্টোরেজ———————————————-64 or 128GB storage

ড্যাশ চার্জ———————————————Dash Charge

ব্লুটুথ————————————————–Bluetooth 5

ব্যাটারি————————————————3300mAh battery

কানেক্টর———————————————–USB-C

এন্ড্রয়েড ভার্সন—————————————–Android 7.1

অন্যান্য————————————————NFC

ওয়ান প্লাস ৫ এর এই স্পেসিফিকেশন এবং ফিচারগুলোই সবচাইতে প্রধান ফিচার এবং স্পেসিফিকেশন ।  ওয়ান প্লাস মুলত একটি চায়না স্মার্টফোন প্রস্তুতকারক কোম্পানি এবং আগের সব ভার্সনের চাইতে বর্তমান ভার্সনের মাঝে রাখা হয়েছে ডুয়েল ক্যামেরার মতো আকর্ষণীয় সকল ফিচার সমুহ ।

আর ফাস্ট কাজ করার জন্য দেয়া হয়েছে ৮ গিগাবাইট এর সুপার ফাস্ট র‍্যাম সাপোর্ট আর এজন্যই হয়তো এটি হতে পারে আপনার প্রতিদিনের স্মার্টফোন হিসেবে নিত্যসঙ্গী ।

চলুন এর ডিজাইন নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা করা যাক –

ওয়ান প্লাস ৫ এর ডিজাইনঃ

 

বাস্তবিক ভাবে ওয়ান প্লাস ৫ দেখতে সত্যি অনেক স্মার্ট এবং আকর্ষণীয় ।  এর ব্যাক সাইড অনেকটাই আইফোন ৭ প্লাস এর মতো কার্ভড টাইপের ।

ক্যামেরা এবং ফ্ল্যাশ এর জন্যও স্মার্ট জায়গা সিলেক্ট করা হয়েছে ফোনটির ব্যাক সাইডে ।  সামনের দিক একটু কমন টাইপের হলেও ওয়ান প্লাস ৫  এর ডিজাইন কমন রাখা হয়েছে সবচাইতে ভালো গ্রিপিং সুবিধা প্রদান করার জন্য ।

সামনের দিকের থ্রিডি গরিলা গ্লাস ৫ প্রোটেকশন সিস্টেম রয়েছে এবং এটাও অনেকটাই কার্ভড রাখা হয়েছে ।

 এর এই কার্ভড ডিজাইন স্মার্টফোনটি হ্যান্ডেল করার জন্য অনেক সহায়ক এবং দেখতেও অনেক স্মার্ট ।  ওয়ান প্লাস ৫  এর মাঝে রয়েছে ৫.৫ ইঞ্চি ডিসপ্লে তার মানে ফোনটি আকারে একটু বড়  কিন্তু এটি দেখতে  অনেকটাই স্লিম ।

এর মাঝের সকল কিছুর ডিজাইন এর মাঝে রয়েছে নিখুঁত কাট ফিনিশিং ।

এর টাচ এবং ভলিউম রকার অসাধারণ ভালো কাজ করে থাকে ।  রয়েছে ৩.৫ মিমি হেডফন জ্যাক পোর্ট এবং ড্যাশ চার্জ সিস্টেম ।  একদম নিচের অংশে ইউএসবি টাইপ সি পোর্ট এবং রয়েছে স্পীকার , মাইক্রোফোন এবং মেমোরি কার্ড স্লট যা সম্পুর্ন মাইক্রো এসডি কার্ড সাপোর্টেড ।

ওয়ান প্লাস ৫ দুইটি কালারে এভেইলেবল , ৬৪ গিগাবাইট মডেলের মাঝে রয়েছে স্লেট গ্রে কালার এবং ১২৮ গিগাবাইট ও ৮ গিগাবাইট র‍্যাম সম্পন্ন  মডেলের কালার মিডনাইট ব্ল্যাক রাখা হয়েছে ।  তবে এর মাঝে ওয়াটার রেজিস্ট্যান্স ফিচারটি নেই ।

ওয়ান প্লাস ৫ এর ডিসপ্লে ও স্ক্রিনঃ

ওয়ান প্লাস ৫ এর মাঝে রয়েছে সুপার এমোলেড ৫.৫ ইঞ্চি এইচডি ডিসপ্লে । যা আপনাকে  কোয়াড এইচডি ১০৮০ পিক্সেল রেজুলেশন দিতে সক্ষম ।

 যদিও ওয়ান প্লাস ৩ এর ডিসপ্লে এর বাজে কাজ করা নিয়ে অনেক মতামত ছিলো তবে ওয়ান প্লাস ৫ সেসকল সমস্যার সমধানে যথেস্ট ভালো ফিচারের ডিসপ্লে প্রদান করেছে ।

 আইফোন ৭ কিংবা গ্যালাক্সি এস ৮ এর  মতো এর মাঝে ডিসপ্লে এর কালার ওভার স্যাচুরেটেড হয়না এবং একচুয়াল লাইফ কালার প্রদানে সক্ষম ।

আর ডিসপ্লে প্রোটেকশনের জন্য হাই টেক গরিলা গ্লাস ৫ ফিচারটি আমার অসম্ভব ভালো লেগেছে ।

ওয়ান প্লাস ৫ এর পারফর্মেন্স এবং সফটওয়্যারঃ

 

আমার মতে ওয়ান প্লাস ৫  বর্তমানে সবচাইতে ফাস্ট স্পিড সম্পন্ন স্মার্টফোন । মানুষ চায় তার স্মার্টফোন অনেক ফাস্ট রেস্পন্স করুক আর ওয়ান প্লাস ৫  সে চাহিদা সঠিক ভাবে পূরণ করতে পেরেছে বলে আমি বলে করি ।  এর মাঝে বিদ্যমান রয়েছে সুপার ফাস্ট স্ন্যাপড্রাগন ৮৩৫  চিপসেট ।

আর গ্রাফিক্স এর বেস্ট সাপোর্ট এর জন্য রয়েছে এন্ডড়ুইনো ৫৪০ গ্রাফিক্স ইউনিট ।

 এর মাঝে র‍্যাম ৮ গিগাবাইট এর ফলে আপনি যেকোন থ্রিডি গেম খেলতে পারবেন অনায়াসে কোন রকম ডিভাইস ল্যাগিং ছাড়াই ।

  এর ফিঙ্গারপ্রিন্ট সেন্সর অনেক ভালো এবং একুরেট কাজ করে ।

  তবে যদি একটু কম পারফর্মেন্স থেকে থাকে কোথাও সেটা হচ্ছে ওয়াইফাই সিস্টেম এর মাঝে , আমার মতে এটি আরো অনেক ভালো হবার প্রয়োজন ছিলো ।

 আর এর স্পীকার গুলোর আউটপুট সিস্টেম নিচের দিকে হবার কারনে কোথাও রেখে গান শুনতে গেলে স্পীকার অনেকটা সাউন্ড আটকে যায় ফলে লাউড এবং ভালো স্পীকার থাকার কারনেও অনেক সময় ভালো ভাবে গান শোনা বা ভিডিও দেখতে হলে একটু ঝামেলা পোহাতে হয় ।

সফটওয়্যার এর কথা বলতে গেলে বলবো  অক্সিজেন ওএস সবচাইতে বেস্ট ওএস এন্ড্রয়েড এর জন্য আমি মনে করি যেটা ওয়ান প্লাস ৫ এর  মাঝেও রয়েছে । এর স্ক্রিন ফিচার গুলো অসাধারণ এবং সহজেই কাস্টমাইজ করা যায় ।

ওয়ান প্লাস ৫ এর ক্যামেরা ও ব্যাটারি লাইফঃ

 

ওয়ান প্লাস ৫ এর প্রধান এবং সবচাইতে আকর্ষণীয় ফিচার হিসেবে কোম্পানিটি তাঁদের ডুয়েল ক্যামেরা ফিচারকেই প্রাধান্য দিচ্ছে ।  আইফোন সেভেন এর মতোই এর ডুয়েল লেন্স অনেকটা কাজ করে থাকে । রয়েছে ১৬ মেগাপিক্সেল ক্যামেরা এবং সনি আইম্যাক্স ৩৯৮ সেন্সর সমৃদ্ধ আকর্ষণীয় সকল ফিচার ।

ডিটেইলশট এর জন্য এর ক্যামেরা একদম পারফেক্ট আর দেয় নিখুঁত পিক্সেল এর গ্যরান্টি ।

অন্ধকারের মাঝেও এর লাইট ইফিয়েন্সি সিস্টেম এর কারনে অনেক ভালো ক্যাপচার করা সম্ভব হয় ।  লো লাইট অথবা দিনের বেলা যেকোন সময় এর মাধ্যমে ক্যাপচার করা  ছবি গুলো আপনার নজর কাড়তে সক্ষম হবে ।

এর মাঝে রয়েছে অটো এইচডি আর ক্যামেরা মোড  । রয়েছে জুম এবং পারফেক্ট টেলিফটো লেন্স এর এক অসাধারণ কম্বিনেশন ।  রয়েছে ইলেক্ট্রনিক ইমেজ  স্ট্যাবিলাইজেশন সিস্টেম ।  এর মাধ্যমে আপনি ৪কে ভিডিও খুব সহজেই ধারন করতে পারবেন ।

ব্যাটারি ফিচারের মাঝে রয়েছে  নন রিমোভেবল ৩৩০০ মিলি এম্পিয়ার এর ভালো পারফর্মেন্স সম্পন্ন ব্যাটারি ।

আপনি ১ ঘণ্টার মাঝেই স্মার্টফোনটি ফুল চার্জ করে নিতে পারবেন এবং ব্যাকআপও পাবেন অনেক ভালো ।  ড্যাশ চার্জ সিস্টেম এর  কারনে এর চার্জিং  হয় অনেক দ্রুত ।

আপনি কি ওয়ান প্লাস ৫ কিনবেন কিনা?

আমি আপনাকে বলছিনা যে আপনি এটা কিনুন তবে আপনি অবশ্যই এর ফিচার গুলো এবং দাম যাচাই করে দেখতে পারেন । অন্যান্য ওয়ান প্লাস থেকে ওয়ান প্লাস ৫ এর মাঝে দামের  পার্থক্য কিন্তু অনেক আর ফিচারের মাঝেও রয়েছে অনেক পরিবর্তন ।

দাম  অনুযায়ী আমার মতে এর ফিচারগুলো  সত্যি অসাধারণ এবং স্যামসাং কিংবা আইফোন ৭ এর সাথে তুলনার যোগ্য ।

 

Comments

comments

Join the discussion

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।