কিভাবে মোটরসাইকেলের ১০টি সাধারণ দূর্ঘটনা এড়াতে পারেন?

কিভাবে মোটরসাইকেলের ১০টি সাধারণ দূর্ঘটনা এড়াতে পারেন?

মোটরসাইকেলের ১০টি সাধারণ দূর্ঘটনা

মোটরসাইকেল চালানোটা সত্যি কিছুটা বিপদজনক। মোটরসাইকেলে যদিও দূর্ঘটনা যেন  না ঘটে এমন অনেককিছুর ব্যবহার আছে, যেমন – শক্তিশালী ব্রেক, বাঁধা মুক্ত দৃষ্টি, চমৎকার হ্যান্ডেলিং ও শক্তিশালী ব্রেকের জন্য সহায়ক টায়ার ইত্যাদি তবুও দূর্ঘটনা ঘটতে দেখা যায়।

কিভাবে এই জিনিসগুলো ব্যবহার করে এবং নিজের বুদ্ধি দিয়ে ১০টি সাধারণ দূর্ঘটনা এড়াতে পারবেন সেই ব্যাপারেই বলবো :

মোটরসাইকেলে নিরাপত্তা :

আপনার মোটরসাইকেলে সেফটি গিয়ার থাকতে হবে। সেফটি গিয়ারটি শুধুমাত্র আপনাকে দূর্ঘটনা থেকেই রক্ষা করবে না, এটা আপনার মোটরসাইকেল চালানোকেও অনেক আরামদায়ক করবে, মোটরসাইকেলটি আপনার নিয়ন্ত্রণে রাখতে সহায়তা করবে এবং রাস্তায় অন্যান্য চালকদের দৃষ্টি আকর্ষনেও আপনাকে সহায়তা করবে।

মোটরসাইকেল চালানোর সময় গাঢ় রঙের হেলমেট বা জামা পরা উচিত এতে করে অন্যান্য গাড়ির চালকের নজরে আপনি সহজেই পড়বেন এবং দূর্ঘটনার ঝুকি কম থাকবে।

বিভিন্ন ধরণের দূর্ঘটনা –

১। A Car Turns Left In Front Of You :

মোটরসাইকেলে সবচেয়ে বেশি হয় এ জাতীয় দূর্ঘটনা। আপনার সামনে যদি কোনো গাড়ি হটাৎ বামে মোড় ঘুরে তবে আপনি আপনার গতি কমাতে না পেরে মোটরসাইকেলের উপর নিজের নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে ফেলে বড় ধরণের কোনো দূর্ঘটনা ঘটাতে পারেন।

কিভাবে এই দূর্ঘটনা এড়াতে পারেন?

আপনাকে আপনার ষষ্ঠ ইন্দ্রিয় দ্বারা কাজ করতে হবে। সামনের কাউকে ইশারা দেয়ার চেষ্টা করুন যাতে আপনার মোটরসাইকেলটি বিপরীত পাশ থেকে আসছে সে সম্পর্কে সামনের চালকটি জানতে পারে। এছাড়াও সামনে যদি কোনো পার্কিং থাকে তাহলে আপনি মোটরসাইকেলটি পার্কিং এর ভিতর দিয়ে নিয়ে যেতে পারেন। সামনের দিকে আপনার স্পষ্ট দৃষ্টি রাখতে হবে।

জ্যামের মধ্যে আপনি পাশের রাস্তার কিছু অংশে থাকলে অবশ্যই আপনাকে সচেতন থাকতে হবে। অথবা আপনার এমন অবস্থানে থাকতে হবে যাতে মোড়ের বিপরীত দিক দিয়ে সামনের যে গাড়িটি আসছে তার চালক যাতে মোড় ঘুরার আগেই সে আপনাকে দেখতে পারে।

সামনে থেকে আসা গাড়ির চাকার দিকে লক্ষ্য রাখুন। তার চাকার গতি ও দিক দেখেই আপনাকে সাবধানতা গ্রহন করতে হবে।

বিপদ দেখলে এমন রাস্তা বা জায়গা খুঁজতে হবে যাতে সেখান থেকে আপনি সহজেই বের হয়ে আসতে পারেন। অন্য কোনো গাড়ির সাথে বিপরীত দিক থেকে যাওয়ার সময় কখনোই মোটরসাইকেল ব্রেক করবেন না এতে করে দূর্ঘটনার সম্ভাবনা বেশি থাকে।

অনেকেই মোটরসাইকেলে বাঁক নেওয়ার সময় মোটরসাইকেলটি নিয়ে একদিকে ঝুঁকে পড়েন। এতে করে আপনার বেঁচে থাকার সম্ভাবনা কতটুকু? এক্ষেত্রে আপনার বেঁচে থাকার সম্ভাবনা নির্ভর করে আপনার মোটরসাইকেলের গতির উপর।

২।  You Hit Gravel In A Blind Corner :

মাঝে মাঝে রাস্তায় মোটরসাইকেল চালানোর সময় অনেককিছু থাকে যার উপর দিয়ে আপনার সামনের চাকা যায়, যেমন – বালি, নুড়ি, পাতা, গোবর ইত্যাদি।

কিভাবে এটা এড়িয়ে যাবেন?

আপনার দৃষ্টি যত দূর যায় আপনাকে সচেতন থাকতে হবে। রাস্তায় আপনার দৃষ্টির উপর নির্ভর করে আপনার মোটরসাইকেলের গতি ঠিক রাখতে হবে। যখন আপনি রাস্তা পরিষ্কার দেখতে পাবেন তখন আপনি চাইলে বেশি গতিতে যেতে পারেন কিন্তু যেখানে আপনি সামনের বেশি রাস্তা দেখতে পাচ্ছেন না অর্থাৎ আপনার রাস্তা বেশ আঁকাবাঁকা তখন আপনার উচিত কিছুটা কম গতিতে যাওয়া।

ট্রেল ব্রেকিং মোটরসাইকেল চালানোতে খুব কার্যকরী একটি দক্ষতা। এটা আপনার শেখা উচিত। আপনি যখন ব্রেক করেন তখন পুরো চাপ সামনের দিকে চলে আসে তাই এক্ষেত্রে আপনাকে এই চাপে ভারসাম্য রাখা শিখতে হবে। এতে করে আপনার দূর্ঘটনা ঘটার সম্ভাবনা কম থাকবে।

আরো একটি দক্ষতা আছে যা আমেরিকানদের খুব পছন্দ কিন্তু এটি মূলত পুলিশদের শেখানো হয়। এই দক্ষতাটিতে সাধারণত দৃষ্টি ও গতির সম্বনয় প্রয়োজন।

৩। You Entered A Corner Too Fast :

এমন একটি অপ্রত্যাশিত অবস্থা যখন আপনি চাইছেন এটা না হোক কিন্তু আপনার নিয়ন্ত্রণের বাইরে।

কিভাবে এড়িয়ে চলবেন?

রাস্তায় আপনাকে সর্বদা সচেতন থাকতে হবে এবং সবদিক খেয়াল রাখতে হবে। ট্রাফিকের সব ধরণের চিহ্ন সম্পর্কে আপনার ধারণা থাকতে হবে। কোথায় কোন চিহ্ন আছে তা লক্ষ্য রেখেই আপনাকে মোটরসাইকেল চালাতে হবে। যদি আপনি দেখেন যে আপনার মোটরসাইকেলের গতি তুলনামূলক বেশি তখন আপনাকে অবশ্যই আত্নবিশ্বাসী থাকতে হবে।

হটাৎ ভয় পেয়ে গেলে বড় ধরণের দূর্ঘটনা ঘটতে পারে। চেষ্টা করবেন যেখানেই যান একটি নিরাপদ গতিতে তাড়াহুড়া না করে সুন্দরভাবে যেতে। কোনো সরু জায়গা দিয়ে যাওয়ার সময় বার বার ব্রেক না দিয়ে কম গতিতে মোটরসাইকেল বের হওয়ার মত জায়গা থাকলে সাবধানে বের হয়ে যাওয়া উচিত।

৪। A Car Changes Lane Into You :

আপনি যখন জ্যামের মধ্যে আপনার মোটরসাইকেলটি চালাচ্ছেন তখন হটাৎ অন্য কোনো গাড়ি আপনার লেনে চলে আসতে পারে। এক্ষেত্রে বড় বড় গাড়ির চালকেরা জ্যামের ছোট জায়গায় আপনার মোটরসাইকেলটি লক্ষ্য না করলেই দূর্ঘটনা ঘটতে পারে।

কিভাবে এই দূর্ঘটনা এড়িয়ে চলতে পারেন?

জ্যামের মধ্যে মোটরসাইকেল চালানোর সময় আপনি যখন লেন পরিবর্তন করবেন তখন লক্ষ্য রাখবেন আপনার সামনের গাড়ির আয়নায় আপনি ঐ গাড়ির চালককে দেখতে পাচ্ছেন নাকি, আপনি যদি ঐ গাড়ির চালককে দেখতে পান তবে সেও আপনাকে দেখতে পাবে।

লেন পরিবর্তনের সময় অবশ্যই সাবধান থাকতে হবে। লক্ষ্য রাখতে হবে আশে পাশের গাড়ির দিকে, বিভিন্ন ট্রাফিক চিহ্নের দিকে।

৫। A Car Hits You From Behind :

আপনার পিছনে থাকা গাড়ির চালক আপনার গাড়ির সামনের রাস্তা দেখতে পায় না কাজেই আপনি যদি হটাৎ ব্রেক করেন তবে তারও হটাৎ ব্রেক করতে হয়। এতে করে আপনার সামান্য ধাক্কা লাগে। মোটরসাইকেলের জন্য এই ধরণের দূর্ঘটনা খুব ভয়াবহ। এমনকি এই ধরণের দূর্ঘটনায় মোটরসাইকেল চালাকের জীবনাশঙ্কা পর্যন্ত হতে পারে।

কিভাবে এই জাতীয় দূর্ঘটনা এড়িয়ে চলবেন?

চেষ্টা করুন মাঝ রাস্তায় মোটরসাইকেল না থামিয়ে রাস্তার একপাশে থামাতে। কিন্তু এটা সবসময় সম্ভব নয় তাই এক্ষেত্রে আপনাকে ব্রেক করার সময় ব্রেক লাইট জ্বালাতে হবে। এতে করে পিছনের গাড়ি চালক আগে থেকেই আপনার ব্রেকের সম্পর্কে অবগত হবে।

তবে অনেক সময় মদ খাওয়া বেপরোয়া গাড়ি চালক আপনার মোটরসাইকেলের পিছনে থাকতে পারে। তখন বিষয়টি সত্যি বিপদজনক। আপনাকে সচেতন থাকতে হবে সবসময়। নিজের সচেতনতাই সবচেয়ে বড় ব্যাপার।

৬। Your Riding Buddies Are Idiots :

একটি মোটরসাইকেল দল একসাথে কোথায় যাওয়ার সময় হটাৎ যদি একজন মাঝে থেমে যায় তখন দলের পিছনের কেউ অসচেতন থাকলে তাকে ধাক্কা দিতে পারে।

কিভাবে এই দূর্ঘটনা এড়িয়ে চলবেন?

একটি দলের সবাইকেই সচেতন থাকতে হবে এবং একে অপরের প্রতি সাহায্যের হাত বাড়াতে হবে। তবে যেই ব্যাপারটি সবচেয়ে বেশি দরকার তা হল অবশ্যই সবাইকে মোটরসাইকেল চালানোর ব্যাপারে পারদর্শী হতে হবে। সকলকেই ছোট খাটো কিছু টেকনিক সম্পর্কে জানতে হবে।

খাটো বাইক চালকদের জন্য ৫টি টিপসঃ উচু এবং বড় মোটরসাইকেল চালানোর কৌশল

৭। You Locked The Front Brake :

আপনি সামনের দিকে খুব কষে ব্রেক করলেন। যার ফলে আপনি দেখলেন আপনি রাস্তায়, আপনার মোটরসাইকেলের চাকা উল্টে আছে। এধরণের দূর্ঘটনা ঘটতে পারে।

কিভাবে এড়াতে পারবেন?

আপনাকে আপনার সামনের ব্রেক ব্যাপারে জানতে হবে এবং শিখতে হবে। কেননা সামনের ব্রেকটি খুবই শক্তিশালী হয়। এটি আপনার ইঞ্জিনের চেয়েও দ্রুত আপনার গতি পরিবর্তন করতে পারে।

যদি আপনি নতুন নতুন মোটরসাইকেল চালাচ্ছেন এমন হয় তবে আপনাকে অবশ্যই সামনের ব্রেক সম্পর্কে ভালো ধারণা রাখতে হবে। এর জন্য সবচেয়ে ভালো হয় যদি আপনি অভিজ্ঞ কারো কাছ থেকে এটি শিখে নেন। বেশি গতিতে থাকাকালীন কিভাবে সামনের ব্রেক ব্যবহার করবেন তাও শিখতে হবে।

বাইক হেলমেট কিনবেন কীভাবেঃ কোন সাইজের হেলমেট নির্বাচন করবেন ও এর যত্ন।

৮। A Car Opened Its Door :

অনেক জ্যামের মধ্যে গাড়ির দরজা খুলতে গেলে সমস্যা হতে পারে। আপনার মোটরসাইকেলের সামনেও এমনটা হতে পারে।

কিভাবে এড়িয়ে চলবেন?

কখনোই ব্যস্ততম রাস্তার জ্যামে অথবা কোনো পার্কিং এর ভিতরে মোটরসাইকেল নিয়ে যাবেন না। এতে করে এধরণের সমস্যায় অনেক বেশি পড়বেন। এধরণের পরিস্থতিতে যখন আপনি পড়বেন তখন বুঝবেন ব্যাপারটা কতটা অস্বস্তিকর।

৯। It’s Slippery! :

আবহাওয়া খারাপ থাকলে রাস্তাও পিচ্ছিল থাকে। তখন দূর্ঘটনা ঘটার সম্ভাবনা বেশি থাকে।

কিভাবে দূর্ঘটনা এড়াতে পারেন?

এসব দূর্ঘটনা এড়ানোর জন্য যেটা সবচেয়ে বেশি দরকার সেটা হল খুব ভালো ধরণের চাকা। রাস্তা পিচ্ছিল হলে মোটরসাইকেলের উপর নিয়ন্ত্রণ রাখাটা একটু কঠিন। ম্যানহোলের ঢাকনার উপর দিয়ে যাওয়াটা ঝুকিপূর্ণ। কেননা সেটা অনেক পিচ্ছিল।

এক্ষেত্রে, সচেতন থাকতে হবে এবং আপনার মোটরসাইকেলের চাকা যদি ভালো মানের হয় তবে চালাতে ও ব্রেক করতে অনেকটা সুবিধা হবে। এসময় রাস্তার জমে থাকা পানিতে তেলের মত দৃষ্টভ্রম হতে পারে। যার জন্য মারাত্নক দূর্ঘটনা ঘটার সম্ভাবনা থাকে। তাই এসব ব্যাপারে জানতে হবে।

বৃষ্টির সময় নিরাপদে মোটরসাইকেল চালানোর ও যত্ন নেবার ৮ টি দুর্দান্ত টিপস

১০। The Most Common Bike Accident (other countries):

১৯৮১ এর এক প্রতিবেদনের তথ্য মতে, এক গবেষণায় মোটরসাইকেল দূর্ঘটনার মূল কারণ খুঁজতে যেয়ে দেখা গেছে ৫০% মোটরসাইকেল চালক অ্যালকোহলের সেবন করে।

কিভাবে এড়াতে পারেন?

মদ্যপান করে মোটরসাইকেল চালাবেন না।

মেয়েদের মোটরসাইকেল চালানোর ১০টি টিপস

মোটরসাইকেল চালানোর টিপস- খাটো ব্যাক্তিদের জন্য

বাংলাদেশে মোটরসাইকেল এর দাম  ২০১৭

Comments

comments

Join the discussion

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।