বিপদের বন্ধু ৯৯৯ – ন্যাশনাল ইমার্জেন্সি সার্ভিস সম্পর্কে জানেন কি ?

আপনি কি জানেন বাংলাদেশে কোন ইমারজেন্সি সার্ভিস আছে কি না ?  যদি না জেনে থাকেন তবে আপনাদের জন্য আজকের এই বিশেষ আকর্ষণ ৯৯৯ – ন্যাশনাল ইমার্জেন্সি সার্ভিস  সম্পর্কে যা বাংলাদেশি একটি ইমারজেন্সি সার্ভিস। চলুন তবে দেখে নেই ৯৯৯ – ন্যাশনাল ইমার্জেন্সি সার্ভিস এর সকল তথ্য ও সার্ভিস সম্পর্কে বিস্তারিত –

৯৯৯ নম্বরে যে কোনো মোবাইল নম্বর থেকে সম্পূর্ণ টোল ফ্রি কল করে বাংলাদেশের নাগরিকরা জরুরি মুহূর্তে ফায়ার সার্ভিস, পুলিশ বা অ্যাম্বুলেন্স সেবা পাবেন।

৯৯৯ - ন্যাশনাল ইমার্জেন্সি সার্ভিস

গত ২২ ফেব্রুয়ারি রাত ১২টা ২৯ মিনিটে ৯৯৯ হেল্প ডেস্ক নম্বরে ফোন করে সাবিউর রহমান ঢাকার টিকাটুলীর কামরুন্নেছা স্কুলের সামনে গ্যাস পাইপলাইন লিক হয়ে প্রচুর গ্যাস বের হচ্ছে জানিয়ে তাৎক্ষণিক সহযোগিতা চান। কল সেন্টার এজেন্ট নাইমুর নাইম ফোনটি কাছের ফায়ার সার্ভিসে ট্রান্সফার করে দেন। ফায়ার সার্ভিস অফিস বিষয়টি গ্যাস নিয়ন্ত্রণ কক্ষে জানাতে বলে। পরে কলটি তিতাস গ্যাস কন্ট্রোল সেন্টারে ট্রান্সফার করা হয়। সেই রাতে তিতাস গ্যাসের কর্মকর্তারা সাবিউরের ঠিকানা নিয়ে দ্রুত ঘটনাস্থলে গিয়ে গ্যাস লিকেজ বন্ধ করতে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেন।

source: http://news39.net

জরুরি মুহূর্তে ৯৯৯-এর মাধ্যমে সেবা পেয়ে সন্তুষ্ট জানিয়ে সাবিউর রহমান বলেন, ‘বাংলাদেশে এমন একটি সেবা পাওয়া যাবে এটা ভাবতেই অবাক লাগছিল। মাত্র আধঘণ্টার মধ্যে তিতাসের লোকজন এসে গ্যাসের লিকেজ বন্ধ করেন। এজন্য কোনো টাকা-পয়সা খরচ হয়নি।’

ইমারজেন্সি সার্ভিস মানেই আমরা বুঝি  খুব দ্রুত যেকোন সার্ভিস প্রদান করার মাধ্যমগুলোকে। অনেকেই হয়তো বাইরের দেশে এই ধরনের অনেক ইমারজেন্সি সার্ভিস এর নাম শুনে থাকবেন এবং দেখে থাকবেন ।

ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স, বাংলাদেশ পুলিশের সঙ্গে অংশীদারির ভিত্তিতে পরিচালিত ৯৯৯ জরুরি সেবা হচ্ছে সরকারের তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগ পরিচালিত একটি উদ্যোগ

এই ধরণের সার্ভিস এর ক্ষেত্রে যা সচরাচর দেখা যায় তা হল আপনার যেকোন ইমারজেন্সি কাজের সময় অথবা বিপদের সময় সবচাইতে দ্রুত কার্যকরী পদক্ষেপ নেবার জন্য এসব প্রতিষ্ঠানের থাকে একটি নির্দিস্ট ফোন নাম্বার যেখানে আপনি ফোন দিয়ে সাহায্য চাইলেই মুহূর্তেই পেয়ে যাবেন কাঙ্খিত সার্ভিস টি এমনকি বেঁচে যেতে পারেন অনেক বড় রকমের দুর্ঘটনার হাত থেকে।

যেমন ধরুন ফায়ার সার্ভিস একটি আগুন নেভানোর সার্ভিস এখানে যেকোন জায়গায় আগুন লাগার সাথে সাথে আপনি ফোন দিলেই নিকটস্থ ফায়ার সার্ভিস স্টেশন থেকে ফায়ারফাইটার এসে আগুন নিভিয়ে যাবে ।


কেমন করে ব্যবহার করবেন ৯৯৯ জরুরি সেবা?


 ঠিকানা প্রদান  

জরুরি সেবা পাওয়ার জন্য সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ ও অপরিহার্য হলো সাহায্য প্রার্থীর লোকেশন বা ঠিকানা জানা। অপারেটকে  আপনার সঠিক অবস্থান বলুন, জেলা বা উপজেলার নামও বলতে হবে।  সঠিক অবস্থান জানা না থাকলে পার্শ্ববর্তী বড় রাস্তা, বাজার বা হাইওয়ের নাম উল্লেখ করতে পারেন।

প্রশ্নের সঠিক উত্তর প্রদান

সঠিক সেবা  নিশ্চিত করণে, অপারেটর বা জরুরি সেবা প্রদানকারী প্রতিষ্ঠান ( পুলিশ, ফায়ার সার্ভিস, অ্যাম্বুলেন্স সেবা প্রদানকারী কর্তৃপক্ষ) আপনাকে কিছু প্রশ্ন করবেন, যাতে তারা যথাযথ কর্মকর্তা বা কর্তৃপক্ষের কাছে আপনার প্রয়োজন জানাতে পারেন। প্রশ্নের সঠিক উত্তর প্রদান করে অপারেটরকে সহায়তা করুন।

কলের সময় শান্ত থাকুন এবং আপনার সমস্যা, বিশদভাবে আপনার ঘটনার বর্ণনা বিস্তারিত তুলে

 আপনার জরুরি পরিস্থিতির  তথ্য দিন সতর্কতা ও ধিরস্থির ভাবে

আপনি নিজে নাকি আপনার কাছের কেউ সমস্যায় পড়েছেন?

আপনার কোন ধরনের জরুরি সেবা প্রয়োজন – অ্যাম্বুলেন্স? পুলিশ? নাকি অন্য জরুরি সেবা?

কেউ আহত হলে তার পরিস্থিতি পরিষ্কারভাবে বলার চেষ্টা করুন– আহত ব্যক্তির অবস্থা  কততুকু খারাপ? তার চেতনা আছে কি? তিনি কি শ্বাস নিতে পারছেন? তার আম্বুলান্সের দরকার আছে কিনা? কল না কেটে লাইনে থাকুন।

অ্যাম্বুলেন্স সেবা চাইতে এই বিষয়টি মনে রাখুন

এখানে একটি বিষয় জানা প্রয়োজন, তা হল,

৯৯৯ সার্ভিসের মাধ্যমে যে অ্যাম্বুলেন্স সেবা প্রদান করা হয়, তা কিন্তু বিনামূল্যে নয়।  বাংলাদেশের কোনো হাসপাতাল  বিনামূল্যে অ্যাম্বুলেন্স সার্ভিস প্রদান করে না।

 ৯৯৯ এর কাজ হল বিভিন্ন অ্যাম্বুলেন্স সার্ভিস প্রদানকারী প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে যোগাযোগ করিয়ে দেয়া। ফলে অ্যাম্বুলেন্সের ধরণ, গন্তব্যস্থল ইত্যাদি অনুযায়ী ভাড়ার পরিমাণ নির্ধারিত হয়। তাই অ্যাম্বুলেন্স সেবা চাইতে এই সকল তথ্য অপারেটরকে সঠিকভাবে প্রদান করুন।

আরেকটি তথ্য, ৯৯৯ সার্ভিস থেকে লাশবাহী অ্যাম্বুলেন্স সেবা প্রদান করা হয় না।

 ফায়ার সার্ভিসের সেবা চাইতে এই বিষয়টি মনে রাখুন

শুধু অগ্নিকাণ্ড নয়, সড়ক ও নৌ দুর্ঘটনা, আটকে পড়া মানুষ বা পশু, পাখি উদ্ধার ইত্যাদি ফায়ার সার্ভিসের সেবা চাইতে ৯৯৯ নম্বরে ফোন করুন।

 পুলিশের সেবা চাইতে এই বিষয়টি মনে রাখুন

জরুরি পুলিশি সেবার ক্ষেত্রে ৯৯৯ অপারেটর আপনাকে নিকটস্থ থানার সঙ্গে যোগাযোগ করিয়ে দেবে। আপনি সেখানে আপনার অভিযোগটি জানাতে পারবেন। পুলিশি সাহায্যের ক্ষেত্রে অধিকাংশ সময়ই নিকটস্থ থানায় গিয়ে অভিযোগ করতে হয়। কারণ লিখিত অভিযোগ ছাড়া অনেকে ক্ষেত্রে পুলিশ তদন্ত শুরু করতে পারে না।

৯৯৯ এর মাধ্যমে সংশ্লিষ্ট থানার কর্মকর্তাদের সঙ্গে কথা বলে আপনার করণীয় সম্পর্কে জেনে নিন।

 আপনার মোবাইল ফোন  নম্বরটি খোলা রাখুন, যাতে অপারেটর যেকোন মুহূর্তে আপনার সঙ্গে পুনরায় যোগাযোগ করতে পারে। এর বাইরে পুলিশ, ফায়ার সার্ভিস বা অ্যাম্বুলেন্স কর্তৃপক্ষও আপনার সঙ্গে যোগাযোগ করতে পারেন।


বাংলাদেশি ইমারজেন্সি সার্ভিস ৯৯৯

হয়তো ভাবছেন এই ইমারজেন্সি সার্ভিসের সুবিধা কি হতে পারে । যারা চাকুরীজীবী কিংবা অনেকেই রাত একটু বেশি করে বাড়ি ফিরি বিশেষ করে ছেলেরা ।অনেকেই কিন্তু রাতের বেলা ঢাকা কিংবা অন্যান্য জায়গায় প্রায়শই ছিনতাইকারীর কবলে পরে থাকি কিংবা কাওকে পরতে শুনি ।

আবার অনেক সময় নিজের চোখের সামনেই এসব হয় কিন্তু প্রতিবাদ বা সাহায্য করার মত উপায় এবং সুযোগ থাকেনা নিজের ক্ষতি হবার ভয়ে । আশেপাশে থাকেনা পুলিশ স্টেশন । ঠিক এইরকম একটি মুহূর্তে আপনার পাশে সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিতে পারে  ৯৯৯ ইমারজেন্সি সার্ভিস ।

শুধু প্রয়োজন আপনার  একটি ফোন কলের তারপর এর সকল কাজ করবে ৯৯৯ । পুলিশ এর প্রয়োজন হলে পুলিশ থেকে শুরু করে যেকোন কিছু পৌঁছে যাবে আপনার নিরাপত্তায় সাথে সাথে।

৯৯৯ ইমারজেন্সি সার্ভিস  থেকে আমি কি কি সুবিধা পেতে পারি ?

 

  • যেকোন ধরণের ছিনতাই , অপহরণ কিংবা এইরকম সকল ধরণের  ক্ষতির আশংকা থাকলে অথবা পরিস্থিতির মাঝে পরে গেলে সাথে সাথে ফোন করুন ৯৯৯ এবং অবস্থান জানিয়ে নিরাপত্তার জন্য সহযোগিতা পেতে পারেন পুলিশের মাধ্যমে ।
  • আপনার যদি খুব ইমারজেন্সি এ্যাম্বুলেন্স এর প্রয়োজন পরে এবং দ্রুত এ্যাম্বুলেন্স না পান তাহলে পেতে পারেন এ্যাম্বুলেন্স । তবে এক্ষেত্রে এ্যাম্বুলেন্স চার্জ কিন্তু  আপনাকেই দিতে হবে ।
  • কোথাও আগুন লাগলে কল করতে পারেন ৯৯৯ এ এবং পেতে পারেন ইমারজেন্সি ফায়ারসার্ভিস সাপোর্ট ।

 

৯৯৯ ইমারজেন্সি সার্ভিস অ্যাপ

আপনার বিপদের সঙ্গী, ইমার্জেন্সি সেবা পেতে বাংলায় তৈরি প্রথম ইমারজেন্সি অ্যাপ। বাংলাদেশ আইসিটি ডিভিশন ২০১৭ সালের ১০ এপ্রিল এই অ্যাপটি প্লে স্টোরে মুক্তি দেয়। ১০ হাজারের অধিক মানুষ বর্তমানে এই অ্যাপটি ব্যবহার করছেন।

৯৯৯ ইমারজেন্সি সার্ভিস

অ্যাপটি ব্যবহার খুবই সহজ। এই অ্যাপটি আপনার জীবন রক্ষা করতে সক্ষম।

 

৯৯৯ – ন্যাশনাল ইমার্জেন্সি সার্ভিস

https://nhd.gov.bd/
  • আপনি এ অ্যাপ থেকে স্বাস্থ্য সেবা ও পেতে সক্ষম ।
  • যদি অতিমাত্রায় প্রয়োজন হয় আপনি হেল্প ডেস্ক থেকেও সাহায্য নিতে পারেন । হেল্প ডেস্ক ২৪ ঘন্টাই খোলা ।
  • সহজেই ম্যাপের মাধ্যমে খুঁজে বের করতে পারেন আপনার নিকটস্থ ফায়ার স্টেশন , হাসপাতাল অথবা থানা ।
  • তাছাড়াও এখানে আপনি যে কোন কিছু সম্পর্কে অনুসন্ধান করতে পারেন । যার ফল আপনাকে সম্পূর্ণ বাংলায় দেয়া হবে।
Download Link : [[ ডাউনলোড করুন এখান থেকে ]]

 

৯৯৯ ইমারজেন্সি সার্ভিস এর সকল ফিচার-

 

  • সম্পূর্ণ টোল ফ্রি নাম্বার
  • শুধুমাত্র মোবাইল ফোন থেকে কল করা যাবে ল্যান্ডলাইন থেকে নয়
  • দিন রাত ২৪ ঘন্টা ইমারজেন্সি সার্ভিস
  • সারা বাংলাদেশ জুড়ে সার্ভিস পাওয়া যাবে
  • ফায়ার সার্ভিস সাপোর্ট
  • পুলিশ নিরাপত্তা সাপোর্ট
  • দ্রুত এ্যাম্বুলেন্স সাপোর্ট সহ আরো অনেক সার্ভিস

 নোটঃ 

মনে রাখবেন ভুল তথ্য প্রদান এবং অযথা কোন কারনে ফোন দিয়ে বিরক্ত করলে আপনার বিরুদ্ধে  নেয়া হতে পারে আইনি ব্যবস্থা আর তাই সবসময় প্রয়োজনে ফোন করুন এবং অযথা কোন তথ্য প্রদান থেকেও বিরত থাকুন।

কল করার পর সঠিক তথ্য দিয়ে বিপদ থেকে বাঁচতে চেস্টা করুন এবং এখন থেকে যেকোন ইমারজেন্সি সাপোর্ট এর জন্য অবশ্যই সবকিছুর আগে মনে রাখুন ৯৯৯ এর কথা।

 

Summary
বিপদের বন্ধু ৯৯৯ - ন্যাশনাল ইমার্জেন্সি সার্ভিস সম্পর্কে জানেন কি ?
Article Name
বিপদের বন্ধু ৯৯৯ - ন্যাশনাল ইমার্জেন্সি সার্ভিস সম্পর্কে জানেন কি ?
Description
৯৯৯ - ন্যাশনাল ইমার্জেন্সি সার্ভিস সম্পর্কে যা বাংলাদেশি একটি ইমারজেন্সি সার্ভিস। চলুন তবে দেখে নেই ৯৯৯ - ন্যাশনাল ইমার্জেন্সি সার্ভিস এর সকল তথ্য ও সার্ভিস সম্পর্কে বিস্তারিত – ৯৯৯ নম্বরে যে কোনো মোবাইল নম্বর থেকে সম্পূর্ণ টোল ফ্রি কল করে বাংলাদেশের নাগরিকরা জরুরি মুহূর্তে ফায়ার সার্ভিস, পুলিশ বা অ্যাম্বুলেন্স সেবা পাবেন।
Author
Publisher Name
http://productreviewbd.com/
Publisher Logo

Comments

comments

Join the discussion

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।