মোটরসাইকেল এর ব্রেক এর যত্নে অসাধারণ কিছু টিপস

মোটরসাইকেল এর ব্রেক এর যত্নে অসাধারণ কিছু টিপস


আপনার মোটরসাইকেল চালনার ক্ষেত্রে আমার মতে সবচাইতে গুরুত্বপূর্ণ  জিনিস যেটা আপনাকে অনেক ধরণের কাজে এবং বিপদের সহায়ক হিসেবে কাজ করে সেটি হল মোটরসাইকেল এর ব্রেক। অবিরাম গতিতে ছুটে চলার মাঝে যখনি আপনার থামানোর প্রয়োজন পরবে মোটরসাইকেল আপনাকে ব্রেক এর উপর নির্ভর  করেই আপনার মোটরসাইকেল থামাতে হবে। 

মোটরসাইকেল এর ফিচারের মাঝে ই কাজটি সহজ এবং নিখুঁত ভাবে করার জন্য সামনের চাকা এবং পেছনের চাকা থামানোর আলাদা আলাদা রকমের ব্রেক ইউনিট দেয়া থাকে।

আপনার রাইডিং সেফটি এর জন্য আপনার উচিৎ প্রতিদিন নিয়মিত আপনার ব্রেক চেক করা যা আপনার নিজের জন্যই ভালো হবে এবং আপনার মোটরসাইকেল চালনা হবে নিরাপদ।

মোটরসাইকেল চালানোর টিপসঃ খাটো ব্যাক্তিদের জন্য – Product Review BD

ডিস্ক ব্রেকঃ

এখনের প্রায় সকল মোটরসাইকেল এর সামনের চাকার মাঝে ডিস্ক ব্রেক দেয়া থাকে এবং কিছু কিছু মডেল এবং কোম্পানির মোটরসাইকেল এর মাঝে সামনে এবং পিছনে উভয় হুইলের  মাঝে ডিস্ক ব্রেক দেয়া থাকে। দুইটি গুরুত্বপূর্ণ দিক নজরে রাখলেই আপনি আপনার  মোটরসাইকেল এর ডিস্ক ব্রেক এর যত্ন নিতে পারবেন।

প্রথমত, প্রতিদিন ব্রেকিং ফ্লুইড এর লেভেল চেক করুন যা ব্রেক-ফ্লুইড  রিজার্ভয়ার এর মাঝে বিদ্যমান থাকে।

ফ্রন্ট ডিস্ক ব্রেক এর  জন্য  রিজার্ভয়ার আপনার হ্যান্ডেলবার এর মাঝে বিদ্যমান  থাকতে পারে এবং রিয়ার ডিস্ক ব্রেক এর এটা থাকতে পারে আপনার মোটরসাইকেল এর বাম পাশের সাইড হিল প্লেট এর  এখানে যা রাইডার ফুট পেগ এর সাথে যুক্ত করা থাকে।

disk-brake


টিপসঃ

১।  সবসময় চেক করুন সঠিক পরিমাণে ব্রেক ফ্লুইড লোড করা আছে।

২।  যদি দেখেন পরিমাণ মত নেই তবে সতর্কতার সাথে রিজার্ভয়ার এর  মাঝে ব্রেক ফ্লুইড লোড করে নিন  এবং সবচাইতে ভালো হবে নতুন একটি ব্রেক ফুইড লোড করতে পারলে, অনেক সময় ব্যবহারের পর আপনি রেখে দিলে সেখানে ময়েশ্চার এর  সৃষ্টি হয় ।

৩।  সাবধানে ব্যবহার করবেন এবং লোড করা কাজটিও সাবধানে করবেন যেন মোটরসাইকেল এর পেইন্ট কিংবা অন্য কোথাও ব্রেক ফুইড না পরে কারণ এটি আপনার বাইক পেইন্টের অনেক ক্ষতি করতে পারে।

তারপর আপনার প্রয়োজন আপনার  মোটরসাইকেল এর ওয়ারিং এর অবস্থা এবং ব্রেক প্যাড এর অবস্থা রেগুলার যাচাই করা। ব্রেক প্যাড  সবসময় কিন্তু ব্যবহারের উপর থাকে এবং অনেক চাপ সহ্য করে আর তাই আপনার উচিৎ সবসময় এটির প্রতি নজর রাখা।

কিভাবে মোটরসাইকেল এর ক্লাচপ্লেট এর (clutch) সমস্যা সমাধান করবেন

gear-oil

টিপসঃ

১। প্রতিদিন আপনার মোটরসাইকেল এর ব্রেক প্যাড এবং এর সাথে যুক্ত সকল ওয়ারিং ভালো করে চেক করুন ।

২। আপনার ব্রেক এর মাঝে যেকোন কিছু ৩ মিমি এর মত চিকন হয়ে আসলে বুঝে নিবেন আপনার প্রয়োজন আপনার ব্রেক প্যাড এর জরুরি ভিত্তিতে  রিপ্লেসমেন্ট।

৩।   কিছু টাকা সেভ করার জন্য কখনই আজে বাজে ব্র্যান্ডের ব্রেক সংক্রান্ত কিছু কিনতে যাবেন না প্রয়োজনে নিজে না জানলে ভালো অভিজ্ঞ কারো কাছ থেকে ধারনা নিয়ে ভালো মানে ব্রেকিং কম্পোনেন্ট  ক্রয় করুন ।

বৃষ্টির সময় নিরাপদে মোটরসাইকেল চালানোর ও যত্ন নেবার ৮ টি দুর্দান্ত টিপস

 

ড্রাম ব্রেকঃ

এটি একটি পুরনো ব্রেকিং সিস্টেম হলেও এখনো অনেক মোটরসাইকেল এর মাঝে ড্রাম ব্রেক ব্যবহৃত হয় আমাদের দেশে। প্রায় সকল ড্রাম ব্রেক এর মাঝে টুইন লিডিং সু সেটাপ থাকে  এবং দুইটি  ক্যাম থাকে  একদম ব্রেক সু  এর শেষ প্রান্তে  যা শেষ প্রান্তটাকে  চাপ দেয় ড্রামের মাঝে ফ্রিকশন সৃষ্টি করে  মোটরসাইকেল চাকা থামানোর জন্য।

আপনাকে যা করতে হবে তা হল প্রয়োজন মত সময়ে ব্রেক লাইনার এবং ব্রেক সু পাল্টে নিতে হবে ভালো ড্রাম ব্রেক সুবিধা পাবার জন্য।

drum-brake
টিপসঃ

১।   পেছনের চাকা  খুলে সতর্কতার সাথে ব্রেক সু গুলো  সরিয়ে ফেলুন ।

২। এবার আপনার ব্রেক এর সাথে সংযুক্ত  সকল ওয়ারিং এবং ব্রেক সু চেক করুন ।

৩। ড্রাম ব্রেক এর মাঝে বিদ্যমান ব্রেক সু এর মাঝে অনেক ময়লা – ধুলাবালু জমে থাকে যার ফলে আপনার  ব্রেক এর ক্ষমতা  ধিরে ধিরে হ্রাস পায়।

৪।   আপনি ভালো করে পরিষ্কার করে পুনরায় লাগিয়ে চেক করতে পারেন ব্রেকিং ঠিকঠাক ভাবে হচ্ছে কিনা ।

৫।  যদি দেখেন আপনার ব্রেক লাইনার এর মেয়াদ শেষ এবং অকেজো হয়ে পরেছে তবে দ্রুত পরিবর্তন করে নিন।

এবং সবসময় চাল ব্র্যান্ড   আস্থাশীল  পার্টস ব্যবহারের চেস্টা করুন ।

বাংলাদেশে মোটরসাইকেল এর দাম ২০১৭ – Product Review BD

Comments

comments

Join the discussion

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।