মোটরসাইকেল সার্ভিসিং এর ২৩ টি আবশ্যিক কাজ – মোটরসাইকেল রক্ষনাবেক্ষন

মোটরসাইকেল সার্ভিসিং এর ২৩ টি আবশ্যিক কাজ

মোটরসাইকেল  নিয়মিত সার্ভিসিং করানো যেমন বাইকের আয়ু বাড়িয়ে দেয়, তেল সাশ্রয়ী করে এবং মোটরসাইকেলরক্ষনাবেক্ষন খরচ কমিয়ে দেয়। নিয়মিত পরিচর্যা করলে কমদামি মোটরসাইকেলও প্রতিদিনের প্রয়োজন মেটানোর জন্য যথেষ্ট। এক থেকে দুই মাস পরপরই মোটরসাইকেল সার্ভিসিং করানো ভালো।

আপনার মোটরসাইকেল যেখানেই সার্ভিসিং করান, খেয়াল করে নিম্নের মোটর সাইকেল মেরামত এর ২৩টা কাজ নিশ্চিত করুন।

মোটরসাইকেল চালানোর কিছু প্রয়োজনীয় পরামর্শ,নূতনদের জন্য-মটর সাইকেল চালানোর নিয়ম

মোটরসাইকেল সার্ভিসিং এর ২৩ টি আবশ্যিক কাজ - মোটরসাইকেল রক্ষনাবেক্ষন

 ১ম কাজ : মোটরসাইকেল ধুয়ে মুছে পরিষ্কার করুন। ভালোভাবে কম্প্রেসার বাতাস দিয়ে শুকিয়ে ফেলুন।
 ২য় কাজ : স্পার্ক প্লাগ, প্লাগের স্থান পরিষ্কার করুন , প্লাগ এর গ্যাপ (০.৮ - ০.৯ এমএম ) ঠিক করুন।
 ৩য় কাজ : ভাল্ভ / টেপেট ক্লিয়ারেন্স ঠিক আছে কিনা দেখুন , না থাকলে ঠিক করুন। 
(পারফেক্ট চাইলে ফিলার গজ দিয়ে কাজটা করুন।)
 ৪র্থ কাজ : আইডল আরপিএম ঠিক করুন। ১২০০-১৫০০ আরপিএম মধ্যে রাখুন।
 ৫ম কাজ : ফুয়েল লাইনের কোথাও লিক, ফাটা আছে কিনা  চেক করুন।
 ৬ষ্ঠ কাজ : এয়ার ফিল্টার নির্দেশিকা অনুসারে পরিস্কার করুন।
 ৭ম কাজ : ইঞ্জিন অয়েল, অয়েল ফিল্টার পরিবর্তন করুন।
 ৮ম কাজ : সামনের এবং পিছনের ব্রেক চেক করুন।
 ৯ম কাজ : ক্লাচ লিভার ফ্রি প্লে চেক করুন। (সাধারনত ১০-১৫ এমএম।)
 ১০ম কাজ : চাকার হাল /অবস্থা দেখুন, কাচ, ছোট পিন, পেরেক কোথাও লুকায়ে আছে কিনা দেখুন। পরিষ্কার করুন। 
মেয়াদ উত্তীর্ণ মার্কিং স্পর্শ করলে চাকা পরিবর্তন করুন।
 ১১তম কাজ : উভয় চাকার বিয়ারিং ঢিলা বা ক্ষতিগ্রস্ত কিনা চেক করুন।
 ১২তম কাজ : হ্যান্ডেল বার ডান দিকে বাম দিকে মসৃন ভাবে ঘুরতেছে, কোথাও টাইট ঢিলা অনুভুত হলে এডজাস্ট করুন।
 ১৩তম কাজ : সামনের চাকার ফর্ক (সাসপেন্সান ), পিছনের চাকার শক (সাসপেন্সান ) ঠিকভাবে কাজ করছে, তেল লিক 
হচ্ছে কিনা চেক করুন।
 ১৪তম কাজ : ড্রাইভ চেইন বেশি ঢিলা , বেশি টাইট থাকলে এডজাস্ট করুন , চাকার দুপাশের মার্কিং অনুযায়ী চেইন সমান্তরাল করুন। নির্দেশিত লুব্রিকেন্ট চেইন এ লাগান।
 ১৫তম কাজ: সকল নাট বোল্ট চেক করুন , ঢিলা হলে টাইট করুন।
 ১৬তম কাজ : সকল বাতি, ইলেকট্রিকেল সুইচ পরীক্ষা করুন।
 ১৭তম কাজ : চাকার হাওয়ার প্রেসার চেক করুন, প্রয়োজনে হাওয়া দিন।
 ১৮তম কাজ : আইডল আরপিএম এ নির্গত ধোয়ায় কার্বন ডাই অক্সাইড পরিমাপ করুন, সমন্বয় করুন।
 (আধুনিক সুবিধাযুক্ত সার্ভিসিং সেন্টার ছাড়া সম্ভব নয়।)
 ১৯তম কাজ : সকল নড়াচড়া স্থান (মেটাল টু মেটাল) চেক করুন, লুব্রিক্যান্ট দিন। সাইড স্ট্যান্ড, সেন্টার স্ট্যান্ড ,
 স্প্রিং এর দুই প্রান্ত।
 ২০তম কাজ : উভয় চাকার ব্রেক সুইচ চেক করুন।
 ২১তম কাজ : ক্লাচ ক্যাবল, থ্রটল ক্যাবল চেক করুন, ব্রেক কেবলে লুব্রিক্যান্ট দিন।
 ২২তম কাজ : সার্ভিসিং এর পর ফ্রন্ট ডিস্ক রটর পানি দিয়ে ধুয়ে নিবেন। তেল জাতিয় কিছু লেগে থাকলে ডিটারজেন্ট দিয়ে 
    পরিস্কার করে নিবেন।
 ২৩তম কাজ : উপরের সব শেষ হলে একটা টেস্ট ড্রাইভ দিন।এরপর ক্লিন করে পালিশ করুন।

কিভাবে আপনার মোটরসাইকেল এর তেল (লুব্রিকেন্ট অয়েল) পরিবর্তন করবেন?

বাইক চালানো শুরু করার আগে সাইড স্টান্ড তুলছেন কিনা চেক করুন।

আশা করি আপনার মোটরসাইকেল চমত্কার পারফরমেন্স দিবে। আজ এই পর্যন্ত। ভালো থাকুন।


বাইক চালানোর কৌশল

মোটরসাইকেল চালানোর কিছু প্রয়োজনীয় পরামর্শ,নূতনদের জন্য

মোটরসাইকেল চালানোর টিপসঃ খাটো ব্যাক্তিদের জন্য – Product Review BD

মোটরসাইকেল পার্টস

বেশির ভাগ দোকান এবং মোটরসাইকেল পার্টস বিক্রেতা ওইএম মোটরসাইকেল পার্টস বিক্রি করে থাকে।

মোটর-সাইকেল পার্টস কেনার দুর্দান্ত দিক নির্দেশিকা – Product Review BD

বংশাল মোটরসাইকেল মার্কেট

যন্ত্রাংশ: ঢাকায় মোটরসাইকেলের যন্ত্রাংশ কেনার আদর্শ স্থান বংশাল, মিরপুর ১০ নম্বর ও বাংলামটর। মোটরসাইকেল ও এলাকা ভেদে যন্ত্রাংশের দামের তারতম্য হয়।

মোটরসাইকেল মালিকানা পরিবর্তন-

মোটরযানের বা মালিকানা সংক্রান্ত তথ্য জানার জন্য আপনাকে নিচের ধাপগুলো অনুসরন করতে হবেঃ
১। প্রথমে মোটরযানের মালিকের নিকট হতে বিআরটিএ’র ফি ব্যাংক-এ টাকা জমাদেওয়ার রশিদ সংগ্রহ করুন।
২। http://brta.cnsbd.com – সাইটটি ওপেন করুন।
৩। “Please Select Your Transaction Type” হতে “e Tracking No” অথবা “Transaction” নির্বাচন করুন।
৪। “Please Enter Your Search Value” অংশে বিআরটিএ’র ফি ব্যাংক-এ টাকা জমাদেওয়ার রশিদ হতে “e Tracking No” অথবা “Transaction” প্রবেশ করান।
৫। এরপর Code: অংশে উপরে প্রদর্শিত ছবির অক্ষরগুলে হুবহু প্রবেশ করান।
৬। এরপর GO বাটনে ক্লিক করুন।
বি:দ্র: যদি বিআরটিএ’র ফি ব্যাংক-এ টাকা জমাদেওয়ার রশিদ না থাকে তাহলে সংশ্লিষ্ট বিআরটিএ সার্কেল অফিসে যোগাযোগ করার জন্য অনুরোধ করা হলো।

 

Comments

comments

Join the discussion

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।