মোটর-সাইকেল পার্টস কেনার দুর্দান্ত দিক নির্দেশিকা

মোটর-সাইকেল পার্টস কেনার দুর্দান্ত দিক নির্দেশিকা

সঠিক মোটরসাইকেল কেনা একটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয়। বিশেষ করে যাদের আগে কখনো মোটরসাইকেল ছিলো না। এর জন্য, সময়, এনার্জি এবং অনুসন্ধান করে আপনার জন্যে সঠিক বাইকটি পছন্দ করতে হবে।  আজকের  আয়োজন মোটর-সাইকেল পার্টস কেনার দুর্দান্ত দিক নির্দেশিকা নিয়ে।

%e0%a6%ae%e0%a7%8b%e0%a6%9f%e0%a6%b0-%e0%a6%b8%e0%a6%be%e0%a6%87%e0%a6%95%e0%a7%87%e0%a6%b2-%e0%a6%aa%e0%a6%be%e0%a6%b0%e0%a7%8d%e0%a6%9f%e0%a6%b8-%e0%a6%95%e0%a7%87%e0%a6%a8%e0%a6%be%e0%a6%b0

 যাইহোক, শুধুমাত্র মোটরসাইকেল কিনলে যে আর কিছু কিনতে হবে না তা চিন্তা করা ভুল। যদি আপনি একটি নতুন মোটরসাইকেল কিনে থাকেন, তবে এটি অনেক সময় মেরামত এর প্রয়োজন পড়ে। তার মানে আপনাকে অবশ্যই বাইক এর পার্টস কিনতে হবে।

মোটরসাইকেল চালানোর কিছু প্রয়োজনীয় পরামর্শ,নূতনদের জন্য

আপনি ইচ্ছে করলেই একজন মোটরসাইকেল মেকানিক দিয়ে আপনার বাইক এর পার্টস কমদামে কিনিয়ে নিতে পারেন, এতে আপনি নিজে কিভাবে আপনার বাইক এর মেরামত করবেন তা শিখতে পারবেন না এবং প্রতিবার মেরামত করতে আপনাকে মোটা অংকের টাকা গুণতে হবে।

তাই প্রথমেই আপনাকে শিখতে হবে কিভাবে মোটরসাইকেল মেরামত করতে হয় এবং তার সাথে মোটরসাইকেল এর সঠিক পার্টস ক্রয় করা জানতে হবে।

আপনি বাইক ম্যানুফেকচার কোম্পানি তে অর্ডার করে আপনার মোটরসাইকেল পার্টস কিনতে পারেন। যে মডেল এর মোটরসাইকেল এর পার্টস ডিলার, অনলাইন শপ এ পাওয়া যায়।

মোটর বাইক চালানোর সময় আপনার কি কি পরিধান করা উচিৎ

মোটরসাইকেল পার্টস এর ধরনঃ

প্রায় সকল ধরনের মোটরসাইকেল এর পার্টস গাড়ি, ট্রাক এর তুলনায় ছোট। এদের বিভিন্ন ধরনের পার্টস রয়েছে। যখন মোটরসাইকেল পার্টস কিনবেন, তিন ধরনের পার্টস রয়েছে। সকল পার্টস এই তিন ধরনের ক্যাটাগরির মধ্যেই বিক্রি হয়ে থাকে।

ওইএম মোটরসাইকেল পার্টস,

আফটার মার্কেট মোটরসাইকেল পার্টস এবং

ব্যবহৃত মোটরসাইকেল পার্টস।

 এই তিন ধরনের পার্টস এর মধ্য থেকেই আপনার বাইক মেরামতের জন্য কোন পার্টসটি পরিবর্তন করবেন তা খুজে পাবেন। প্রায় পার্টসের সুবিধা এবং অসুবিধা রয়েছে।

মোটর সাইকেল চালানো শুরুর আগে বাইকের প্রি রাইড চেক করুন

 

# ওইএম (OEM) মোটরসাইকেল পার্টসঃ

বেশির ভাগ দোকান এবং মোটরসাইকেল পার্টস বিক্রেতা ওইএম মোটরসাইকেল পার্টস বিক্রি করে থাকে। ওইএম বলতে অরজিনাল ইকুইপমেন্টস ম্যানুফেকচার বুঝায়। এর মানে সকল ওইএম পার্টস মোটরসাইকেল কোম্পানীর কর্তৃক তৈরি হয়ে থাকে।

 যেমন, ওইএম হোন্ডা মোটরসাইকেল পার্টস প্রস্তুত করে হোন্ডা কোম্পানি।

ওইএম পার্টস কিনা মানে আপনার বাইক এর যে পার্টসটি কিনবেন, তা পরিবর্তন করা। তবে আপনি একবারে নতুন ওইএম পার্টস পাবেন।

এদের কিছু কিছু পার্টসে ওয়ারেন্টিও রয়েছে।

বাইক হেলমেট কিনবেন কীভাবেঃ কোন সাইজের হেলমেট নির্বাচন করবেন ও এর যত্ন।

Ø ওইএম মোটরসাইকেল পার্টস কিনার সুবিধাঃ

ওইএম মোটরসাইকেল পার্টস কিনার সবচেয়ে বড় সুবিধা যে, এটি আপনার বাইকে সঠিক ভাবে ফিট হবে। কারন, এই পার্টসটি কোম্পানি কর্তৃক আপনার বাইকের সাথে তৈরি করা হয়েছে।

সাধারনভাবে, ওইএম মোটরসাইকেল পার্টস অনেকদিন পর্যন্ত স্থায়ী হয়।

বাইক এর পার্টস রিপ্লেসমেন্ট এর জন্য ওইএম মোটরসাইকেল পার্টস কিনা সবচেয়ে ভালো।

যে কোন ধরনের পরিবরতনের ক্ষেত্রে কোন সমস্যা হয় না বা আপনি আরো বেশি ফিচার ব্যবহার করতে পারবেন।

ওইএম মোটরসাইকেল পার্টস ই হল সুবিধাজনক পন্থা।

Ø ওইএম মোটরসাইকেল পার্টস এর অসুবিধাঃ

ওইএম পার্টস কিনার সবথেকে প্রধান সমস্যা এর খরচ অনেক বেশি। এছাড়াও ওইএম মোটরসাইকেল পার্টস সচরাচর পাওয়া যায় না। ওইএম মোটরসাইকেল পার্টস শুধুমাত্র মোটরসাইকেল এর ডিলার থেকে বিক্রি হয়ে থাকে।

অন্যান্য ধরনের পার্টস গুলো আপনি আথোরাইজড ডিলার বা অনলাইনে এবং রিটেইল আউটলেট এ কমদামে পাওয়া যায়।

# আফটার মার্কেট মোটরসাইকেল পার্টসঃ

ওইএম পার্টস না পাওয়া গেলে, আপনার বাইকের অরজিনাল পার্টস এর মত অথরাইজড পার্ট সাপ্লাইয়ারই হল আফটার মার্কেট মোটরসাইকেল পার্টস। যা তৈরি হয় থার্ড পার্টি দ্বারা।

আফটার মার্কেট মোটরসাইকেল পার্টস এর থার্ড পার্টি অথরাইজড নয়, তবে কোন মাধ্যমে বাইক ম্যানুফেকচার কোম্পানীর সাথে তাদের সংযুক্ত থাকতে পারে।

কিন্তু, কোম্পানির জন্য তারা সঠিক ফিট মোটরসাইকেল পার্টস প্রস্তুত করে থাকে।

Ø আফটার মার্কেট মোটরসাইকেল পার্টস সুবিধা  

তারা বিভিন্ন কোম্পানির আফটার মার্কেট মোটরসাইকেল পার্টস প্রস্তুত করে থাকে। আফটার মার্কেট পার্টস এর কিছু কিছু অনেম দাম এর রয়েছে। এগুলো অনেক ভালো মানের হয়ে থাকে।

আফটার মার্কেট মোটরসাইকেল পার্টস কিনার আগে অবশ্যই আপনার ব্র্যান্ড সম্পর্কে নিশ্চিত হয়ে নিন।

কিছু ব্র্যান্ড কমদামে পার্টস বিক্রি করে থাকে। যার ফলে এরা মার্কেট এ বেশি পরিচিত। আপনি অবশ্যই পার্টস কেনার আগে আপনার ব্র্যান্ড এর সম্পর্কে ভালো ভাবে জেনে নিন।

আফটার মার্কেট মোটরসাইকেল পার্টস অনেকাংশে ওইএম পার্টস এর মত ভালো মানের। আফটার মার্কেট পার্টস যেকোন রিটেইলার এবং অনলাইন এ পাওয়া যায়।

Ø আফটার মার্কেট মোটরসাইকেল পার্টস  অসুবিধা ঃ

এর প্রধান সমস্যা হচ্ছে অনেক থার্ড পার্টি কোম্পানি আফটার মার্কেট পার্টস প্রস্তুত করে থাকে। এর মধ্য থেকে সঠিক ব্র্যান্ড খুজে বের করা কষ্টসাধ্য।

Ø আফটার মার্কেট মোটরসাইকেল পার্টস ফেয়ারিংঃ

আফটার মার্কেট  এর কমন পার্টস মোটরসাইকেল ফেয়ারিং। মোটরসাইকেল ফেয়ারিং শেল আকারে আপনার বাইক এ সংযুক্ত ফ্রেম এর সাথে এয়ার রেসিস্ট্যান্স নির্নয় করে।
মোটরসাইকেল ফেয়ারিং সাধারন রেস মোটরসাইকেল এর ড্রাগ রেসিস্ট্যান্স কমিয়ে বিভিন্ন পরিবর্তন করে থাকে।

অনেক সময় মোটরসাইকেল এর অরজিনাল ম্যানুফেকচার পাওয়া যায় না।

# ব্যবহৃত মোটরসাইকেল পার্টসঃ

আপনার বাইক এর জন্য ওইএম পার্টস বা আফটার মার্কেট মোটরসাইকেল পার্টস কোনটাই না পাওয়া গেলে আপনি আরেক ধরনের পার্টস ব্যবহার করতে পারেন।

ব্যবহৃত মোটরসাইকেল পার্টস হল শেষ উপায়। এসব পার্টস এর গ্যারান্টি নেই।

আপনার মোটরসাইকেল রিপিয়ার করার সবচেয়ে সহজ উপায় ব্যবহৃত মোটরসাইকেল পার্টস লাগানো।

তবে, পার্টস ক্রয় করার সময় অবশ্যই বায়ার এর সাথে সঠিক ভাবে যাচাই করে নিবেন।

Ø ব্যবহৃত মোটরসাইকেল পার্টস এক্সেসোরিজঃ

মোটরসাইকেল পার্টস এর মধ্যে এইঞ্জিন রিপিয়ার বা ব্যবহৃত মোটরসাইকেল ব্রেক কিনা অনেকটাই রিস্কি। এজন্য আপনার মোটরসাইকেল এক্সেসোরিজ সম্পরকে ধারনা থাকা প্রয়োজন।

এতে আপনি নিজেই স্বল্প খরচে ইচ্ছেমত আপনার বাইক এর পার্টস কিনতে এবং রিপিয়ার করতে পারবেন।

 

Comments

comments

Join the discussion

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।