ম্যাবেলিন কোলোসাল কাজল (Maybelline Colossal Kajal) রিভিউ

ম্যাবেলিন কোলোসাল কাজল (Maybelline Colossal Kajal) রিভিউ

ম্যাবেলিন কোলোসাল কাজল (Maybelline Colossal Kajal) রিভিউ  নিয়ে বলার আগে   চোখ নিয়ে বলি, কেননা চোখ হচ্ছে মনের জানালা। মনের এই জানালার জন্য ভালো একটি কাজল তার সৌন্দর্য অনেক বাড়াতে পারে।

ম্যাবেলিনের কাজল ব্যবহারে আপনি এই সৌন্দর্যকে অনেকবেশি আকর্ষনীয় করে তুলতে পারেন।  আজকে আলোচনা করবো, ম্যাবেলিন কোলোসাল কাজল (Maybelline Colossal Kajal) রিভিউ নিয়ে।

ম্যাবেলিনের কাজল খুবই মসৃণ ও কোমল। যেহেতু এটি অনেক কোমল তাই বেশি চাপে ভেঙ্গে যেতে পারে। তবে একটু সাবধানতার সাথে ব্যবহার করলে সরু দিকটি ভেঙ্গে যাবে না। এটি খুব সূক্ষ্ম হয় বলে এর দ্বারা সুন্দর লাইন আঁকা যায়।

ম্যাবেলিন কোলোসাল কাজল (Maybelline Colossal Kajal) রিভিউ

Source:Vanitynoapologies

এই কাজল ব্যবহার করার জন্য আপনার চোখের ত্বকে হাত দিয়ে কোনো টানটান ভাব আনতে হবে না। এর রঙ খুব ভালো। পছন্দমত যে কোনভাবে এটি ব্যবহার করতে পারেন এবং এতে করে আপনার চোখটি সুন্দর, উজ্জ্বল ও প্রাণবন্ত হয়ে উঠবে। কাজলটি লাগানোর কয়েক সেকেন্ড পরেই এটি সম্পূর্ন ম্যাট হয়ে যাবে এবং এটি অনেক্ষণ থাকবে।

প্রায় ১০ ঘন্টার মত এটি একদম ভালো থাকে, যদিও কোম্পানী বলে ১২ ঘন্টা থাকার কথা। এটি মোটেও হালকা হবে না বা লেপ্টেও যাবে না। ভারী ধরণের আইশেডের সাথে এটি খুব ভালো লাগবে। কালো আইশেডের সাথে এই কাজল ব্যবহার করলে খুবই মসৃণভাব আসবে।

চোখে কাজল দেয়ার নিয়ম (1)

beautyandmakeupmatters.com

ম্যাবেলিনের কাজল ব্যবহারের ফলে চোখে কোনো ধরনের ক্ষতি বা এলার্জি হবে না। অবশ্য এই কাজল সাধারণ ফেস ওয়াশ ব্যবহার করলে যাবে না। এর জন্য তৈলাক্ত ক্রিম বা মেকাপ রিমুভার ব্যবহার করতে হবে। এটি নিঃসন্দেহে খুব ভালো মানের একটি কাজল, যা অনেকক্ষণ থাকবে এবং এটি দামেও সঠিক।

ম্যাবেলিন কোলোসাল কাজলের কিছু ফিচার

  • এর গভীর কালো তীব্র রঙ, খুব উজ্জ্বল
  • রঙ হালকা বা নষ্ট হয় না।
  • ভিটামিন ই সহ চোখের জন্য ভালো এমন উপাদান দিয়ে তৈরি।
  • এর গঠন বৈশিষ্ট্যের জন্য এটি ব্যবহার করা খুব সহজ।

 

ম্যাবেলিন কোলোসাল কাজল  প্যাকেটজাতকরণ

ম্যাবেলিনের কাজলগুলো সাধারণত একটি কালো ও হলুদ রঙের বাক্সে প্যাকেটজাত করা হয়। কাজল পেন্সিলটির রঙ ও হলুদ ও কালো হয়। হলুদ ও কালো রঙের এই যুগলবন্দীটি খুবই আকর্ষনীয়। এই কাজলটি সূক্ষ্ম করাই থাকে। এর গঠনটিই এমন যে এটি কখনোই সূক্ষ্ম করার প্রয়োজন হয় না। তাই এটি ব্যবহার করা খুব সহজ। কিন্তু এর প্যাকেটে উপাদান এর উল্লেখ থাকে না।

ম্যাবেলিন কোলোসাল কাজল এর দাম

এর দাম বাংলাদেশে সর্বোচ্চ ৩০০ থেকে ৪৫০ টাকার মাঝেই আপনি দোকানে পাবেন ।

ম্যাবেলিন কোলোসাল কাজলের মেয়াদ উত্তীর্ণের তারিখ

 

প্রক্রিয়াজাতকরণের ২৪ মাস পর্যন্ত এটি ব্যবহার উপযোগী থাকে।

সুবিধা

  • খুব ভালো কালো রঙ সম্পন্ন।
  • সূক্ষ্ম করার প্রয়োজন নেই।
  •  সহজে বহনযোগ্য।
  • সিল্কি এবং স্থায়ী।
  • লেপ্টে যায় না।
  • চোখের নিচে, উপরে দুইদিকেই সহজভাবে ব্যবহার করা যায়।
  • পানিতে নষ্ট হয় না।
  • চোখের কোনো প্রকার ক্ষতি বা এলার্জির ভয় নেই।

অসুবিধা

এটি  আইলাইনার এর মত ব্যবহার করা যায় না।

এর দাম তুলনামুলক ভাবে বেশী।

তাড়াতাড়ি শেষ হয়া যায়।

 

এই কাজল ব্যবহারের পর কতক্ষণ পর্যন্ত থাকবে?

এটি ব্যবহারের পর প্রায় ১২ ঘন্টা থাকে বলে ম্যাবেলিন কোম্পানী জানায়। তবে এটা  সত্যি যে, কাজলের স্থায়িত্ব আসলেই বেশী।

ম্যাবেলিন কোলোসাল কাজল কিভাবে ব্যবহার করবেন?

৪টি সহজ ধাপের মাধ্যমে আপনি এই কাজল সুন্দরভাবে ব্যবহার করতে পারবেন। যেমন –

  • কাজলের মুখটি খুলুন।
  • কাজলের সূক্ষ্ম মাথাটি বের করার জন্য পেন্সিলের নিচের দিকটি একটু টুইস্ট করুন বা ঘুরান।
  • এইবার আস্তে আস্তে আপনার পছন্দ মত উপরে, নিচে ব্যবহার করুন।
  • যখন যখন প্রয়োজন তখন তখন ব্যবহার করুন।

কিভাবে এই কাজল মুছবেন বা পরিষ্কার করবেন?

যেকোনো ক্রিম বা ওয়েল মেকাপ রিমুভার দিয়ে এটি পরিষ্কার করা যাবে।

Comments

comments

Join the discussion

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।