সহজেই দূর করুন মুখের বয়সের ছাপ ও দাগ ভিটামিন-সি এর সাহায্যে

সহজেই দূর করুন মুখের বয়সের ছাপ ও দাগ ভিটামিন-সি এর সাহায্যে

বয়স কোন মানুষের ক্ষেত্রেই আজীবন একরকম থাকেনা, মানুষের রূপ, লাবন্যতা, নমনিয়তা তেমনি করে অস্থায়ী একটা ব্যাপার। বয়স বৃদ্ধি পাবার সাথে সাথে সাথে আমাদের ত্বকের মাঝেও বিভিন্ন ধরণের ছোপ ছোপ দাগ লক্ষ্য করা যায়।

 অনেকের সন্তান জন্ম হবার পর মুখে এধরণের দাগ বা ডিপ স্ট্রেচ লক্ষ্য করে থাকে।

 যদিও এটা একটা সাধারণ ব্যাপার তারপরেও অনেকেই বিভিন্ন ধরণের উপাদান, ক্রিম, ফেসিয়াল, ব্লিচ সহ অনেক কিছুই মুখের মাঝে প্রয়োগ করে থাকে এই ধরণের স্ট্রেচ বা দাগ থেকে মুক্তি পাবার জন্য।

%e0%a6%b8%e0%a6%b9%e0%a6%9c%e0%a7%87%e0%a6%87-%e0%a6%a6%e0%a7%82%e0%a6%b0-%e0%a6%95%e0%a6%b0%e0%a7%81%e0%a6%a8-%e0%a6%ae%e0%a7%81%e0%a6%96%e0%a7%87%e0%a6%b0-%e0%a6%ac%e0%a7%9f%e0%a6%b8%e0%a7%87

আমার মতে একেবারে দাগ মিলিয়ে যাবার ক্ষেত্রে যে ভিটামিন সি সম্পূর্ণ কার্যকরী তা কিন্তু নয়। তবে গবেষণায় দেখা গেছে যে ভিটামিন সি ত্বকের উজ্জ্বলতা বৃদ্ধির জন্য কোষের মাঝে প্রয়োজনীয় হরমোন তৈরিতে সহায়তা করে থাকে।

স্ট্রেচ বা দাগ দূর করার জন্য কি করা যেতে পারে ভাবছেন?

আপনি কখনই এই ধরণের দাগ থেকে একেবারে মুক্তি পাবেন না। যাই হোক, বিভিন্ন ধরণের ফেসিয়াল, কসমেটিক পন্য ব্যবহার করে আপনি এর উজ্জ্বলতা ঢেকে ফেলতে পারবেন এবং আপনার ত্বকের উজ্জ্বলতা বাড়ানোর জন্য বিভিন্ন উপাদান ব্যবহার করে দাগ টিকে কিছুটা হলেও কম দৃশ্যমান করতে পারবেন।

অনেক সময় এসব দাগ নিজে থেকেই মিলিয়ে যায় আবার অনেক সময় এগুলোকে বাসায় প্রতিদিন কিছু পরিমাণ রূপচর্চা করে ত্বকের সাথে মিলিয়ে নিতে হয়।

কারণঃ 

১. হটাৎ করে ওজন কমে বা বেড়ে গেলে

২. ঋতুস্রাবের অনিয়মিত হবার ফলস্বরূপ

৩. গর্ভধারণ কাল বা সন্তান জন্ম নেবার পরে এরকম দাগ হতে পারে।

৪. দুশ্চিন্তা থেকে কিংবা রাত জাগা থেকে।

৫. বয়সের কারণে।

কিভাবে ভিটামিন সি এই দাগ দূর করতে ভুমিকা পালন করে?

আমরা খাদ্য খাই শুধু মাত্র ক্ষুধা নিবারণের জন্য নয়। খাবারের মাঝে মিশে থাকা প্রাকৃতিক গুনাগুণ গুলো শরীরে পুষ্টি যোগায় আর এর মাঝে থাকা ভিটামিন গুলো শরীরের বিভিন্ন কার্যক্রমে সহায়তা করে থাকে এটা সবারই জানা।

আপনি বিভিন্ন ভিটামিন সি যুক্ত প্রাকৃতিক খাবার ফল মুল থেকে পেতে পারেন আবার বিভিন্ন ডায়েট ফুড না সাপ্লিমেন্ট থেকেও পেতে পারেন।

করনীয়ঃ

১. ভিটামিন যুক্ত ফল খাবেন প্রতিনিয়ত

২. ভিটামিন সি সমৃদ্ধ ক্রিম ব্যাবহার করতে পারেন।

৩. ভিটামিন সি আছে এইরকম ভিটামিন সিরাম বাজারে বিক্রি হয় সেগুলো আপনার স্কিন এর লাগাতে পারেন।

৪. ভিটামিন সমৃদ্ধ ফল যেমন তমেত, বাদাম, পেপে, স্ট্রবেরি, বাঁধাকপি, ফুলকপি, টক জাতীয় ফল এগুলো খাবেন।

৫. পানি পান করবেন পরিমাণ মতো।

৬. বিভিন্ন ভিটামিন সি সমৃদ্ধ সিরাম ব্যবহার করবেন অবশ্যই কিন্তু তার আগে মনে রাখবেন অবশ্যই একজন ভালো ডার্মাটোলজিস্ট এর সাথে পরামর্শ করে নিবেন যেন ত্বকের জন্য আপনার প্রয়োজন অনুযায়ী সঠিক ক্রিম বা সিরাম আপনি ব্যবহার করতে পারেন কোনরূপ ক্ষতি ছাড়াই।

আর ব্যবহারের পূর্বে অবশ্যই পরীক্ষামূলক ব্যবহার করতে ভুলবেন না।

মনে রাখবেন,শুধু মাত্র খাবারের থেকে প্রাপ্ত ভিটামিন সি দ্বারা আপনার পুরো শরীরের ভিটামিন সি এর অভাব পূরণ নাও হতে পারে। তাই অবশ্যই সঠিক এবং আপনার ত্বকের উপযোগী ক্রিম, ফেসিয়াল এবং ভিটামিন সিরাম ব্যবহার করবেন। ভিটামিন সি আপনার শরীরে রক্ত চলাচল স্বাভাবিক করে।

মৃত কোষ দূর করে এবং নতুন কোষ গুলোর কার্যক্ষমতা বাড়াতে সাহায্য করে থাকে। ত্বকের উজ্জ্বলতা বৃদ্ধি করতে অনেকাংশে সাহায্য করে থাকে। ভিটামিন সি কাঁটা ছেড়া বা পুড়ে যাওয়া কোষ তারাতারি সাড়াতে অনেক সাহায্য করে তাই আপনার মুখের মাঝে জন্মানো দাগের কোষ গুলো সজীব করে তুলে আপনার ত্বকের উজ্জ্বলতা বাড়াতে এটি সত্যি অনেক কার্যকরী।

আপনার করনীয় ছোট ছোট কিছু কাজের মাধ্যমেই আপনি সহজেই এসব দাগ দূর করে আবার ত্বকের পুরনো উজ্জ্বলতা ফিরিয়ে আনতে পারেন।

আজই ভিটামিন সি যুক্ত খাবার খাওয়া শুরু করুন। নিজের ত্বক বান্ধব ক্রিম ব্যবহার করুন। সূর্যের খরতাপ থেকে দূরে থাকুন, নমনিয় ত্বকের অধিকারী যারা তারা যত্নের সহকারে কিছু পরিমাণ হারবাল ফেসিয়াল করুন নিজের বাসায় বসেই।

লেবুর সাথে অল্প পরিমাণ চিনি মিশিয়ে স্ক্রাবিং করুন। পানির বিকল্প আর কিছুই নেই পানি পান করুন বেশি বেশি।

পর্যাপ্ত ঘুম নিশ্চিতের পাশাপাশি যারা সন্তান প্রসব করেছেন তারা সন্তান খেয়াল রাখার পাশাপাশি মুখে বিভিন্ন ধরণের রাত্রিকালীন ফেয়ারনেস ক্রিম বা দাগ দূরীকরণ ফেসিয়াল প্যাক ব্যবহার করতে পারেন।

যাদের সময়মত পিরিয়ড হয়না বা সমস্যা দুশ্চিন্তা না করে ডাক্তারের সাথে পরামর্শ করুন।

স্বাস্থ্য এবং ত্বক আমাদের নিজেদের অংশ এর মাঝেই আমরা বেঁচে আছি তাই নিজে থেকেই যত্ন নিন। দেখবেন আপনার ত্বকের উজ্জ্বলতা এবং স্বাস্থ্যের সুস্থতা আপনি নিজেই অনুভব করতে পারবেন। আশাকরি আপনাদের সমস্যা সমাধানে পর্যাপ্ত তথ্য দিয়ে সাহায্য করতে পেরেছি, ধন্যবাদ।

Comments

comments

Join the discussion

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।