স্যামসাং গ্যালাক্সি সি৯ প্রো

স্যামসাং গ্যালাক্সি সি৯ প্রো (Samsung Galaxy C9 Pro)

প্রতিনিয়ত এই প্রযুক্তিকে বিভিন্ন কোম্পানি আরও সমৃদ্ধশালী করে তুলছে নতুন নতুন স্মার্টফোন বাজারে আনার মাধ্যমে। আর সেই ধারাবাহিকতার হাত ধরেই প্রযুক্তির প্রতিযোগিতার বাজারে কোরিয়ান টেক জায়ান্ট স্যামসাং আবারো নিয়ে এলো, অসাধারন একটি স্মার্টফোন স্যামসাং গ্যালাক্সি সি৯ প্রো (Samsung Galaxy C9 Pro)

অনেকদিন ধরেই  স্যামসাং সাধ্যের মধ্যে ফিঙ্গারপ্রিন্ট সেন্সর সহ ফোন বাজারে আনতে চেষ্টা করছে। আর স্যামসাং গ্যালাক্সি সি৯ প্রো (Samsung Galaxy C9 Pro) সেই চেষ্টার একটি রুপ।

%e0%a6%b8%e0%a7%8d%e0%a6%af%e0%a6%be%e0%a6%ae%e0%a6%b8%e0%a6%be%e0%a6%82-%e0%a6%97%e0%a7%8d%e0%a6%af%e0%a6%be%e0%a6%b2%e0%a6%be%e0%a6%95%e0%a7%8d%e0%a6%b8%e0%a6%bf-%e0%a6%b8%e0%a6%bf%e0%a7%af

স্মার্টফোন স্যামসাং গ্যালাক্সি সি৯ প্রো (Samsung Galaxy C9 Pro) মোবাইল এর দামঃ

 এত হরেকরকম সুবিধা থাকার পরও বাংলাদশের মোবাইল বাজারে মোবাইলটির মুল্য নির্ধারন করা হয়েছে মাত্র ৪৯,৯০০  টাকা।

To pre-book, visit: www.prebookc9.com

মোবাইলটির ওজন মাত্র ১৮৫ গ্রাম এবং এটি ৩টি কালারে পাওয়া যাবে।

 সাধারনত যারা গেম পিপাসু ও একত্রে অনেকগুলো টাস্ক একসাথে করতে চান তাদের জন্য মোবাইলটি উপযুক্ত।

মোবাইলটি ব্যাটারি লাইফটাইম ও বেশ ভালো এবং ফাস্টচার্জিং বা দ্রুতচার্জ দেয়া যাবে এমন সুবিধাও রয়েছে।

চলুন তাহলে দেখে নেয়া যাক এই মোবাইটিতে কি কি ফিচার রয়েছে!!

ডিসপ্লেঃ

মোবাইলটিতে রয়েছে ৬ ইঞ্ছি সুপার এমোলেড ফূল এইচডি ডিসপ্লে যার রেজুলেশন হল ১০৮০X১৯২০ পিক্সেল এবং পিক্সেল ডেনসিটি হল ৩৬৭ পিপিআই। এটি মাল্টিটাচ সাপোর্ট করে এবং পাশাপাশি এতে সুরক্ষার জন্য রয়েছে কর্নিয়া গরিলা গ্লাস।

স্যামসাং জে২ ২০১৬

ক্যামেরাঃ

রিয়ার ক্যামেরাঃ মোবাইলটিতে রয়েছে ১৬ মেগাপিক্সেল রিয়ার ক্যামেরা যার ইমেজ রেজুল্যাশন হল ৪৬১৬X৩৪৬৪ পিক্সেল। এটি অটোফোকাস ক্যামেরা এবং রয়েছে ফ্ল্যাশ যার সাহায্যে সল্প আলোতেও আপনি অসাধারন ছবি তুলতে পারবেন। এছাড়াও এটি দ্বারা ১৯২০X১০৮০ রেজুলেশনে এইচডি ভিডিও করা যাবে যার ফ্রেম পার সেকেন্ড রেট হল ৩০।

ফ্রন্ট ক্যামেরাঃ ফ্রন্ট ক্যামেরাও রিয়ার ক্যামেরার মতই ১৬ মেগাপিক্সেল, আছে এলইডি ফ্ল্যাশ। এছারাও ফ্রন্ট ও রিয়ার ক্যামেরা ২টির রয়েছে আইএসও, এক্সপোজার কম্পেনশেসান,এইচডিআর মোড সহ আর অনেক অ্যাডভান্সড ফটো সেটিংস সিস্টেম।

স্যামসাং গ্যালাক্সি জে১ ২০১৬ ( samsung Galaxy J1 2016)

ব্যাটারিঃ

স্যামসাং গ্যালাক্সি সি৯ (Samsung Galaxy C9 Pro) মোবাইলটিতে রয়েছে ৪০০০ মিলিঅ্যাম্পিয়ার শক্তিশালী লি-পলিমার ব্যাটারী যা ফাস্ট চার্জিং সাপোর্ট করে এবং আপনাকে দিবে দীর্ঘ সময় ধরে চার্জিং এর বিরক্তিকর অভিজ্ঞতা থেকে মুক্তি।

পাশাপাশি এর আল্ট্রা পাওয়ার সেভিং মোড যা আপনাকে দিবে ব্যাটারীর দীর্ঘায়ু।

নেটওয়ার্কঃ

এতে ২টি ন্যানো সিম ব্যাবহার করা যাবে এবং মোবাইলটি ৪জি সাপোর্ট করে। তবে যেকোন একটি সিম ২জি/৩জি/৪জি মুডে ব্যাবহার করা হলে অন্য সিমটি শুধুমাত্র ২জি মুডেই ব্যাবহার করা যাবে।

এতে রয়েছে ওয়াইফাই ৮০২.১১ বি/জি/এন ব্যাবস্থা এবং রয়েছে ব্লুটুথ ভার্সন ৪.২। এছারাও মোবাইলটিতে ১টি জিপিএস রয়েছে এবং মোবাইলটি ইউএসবি ২.০ সাপোর্টেড।

বাংলাদেশের সেরা ১০ টি মোবাইল ব্র্যান্ড ২০১৬

প্রসেসর ও রেমঃ

ফোনটিকে ৬ গিগাবাইট  র্যাম এবং স্ন্যাপড্রাগন ৬৫২ চিপসেট দিয়ে সজ্জিত করা হয়েছে। এতে রয়েছে হাইস্পিড অক্টাকোর ও কোয়াডকোর প্রসেসর যা দ্রুত কার্জসম্পাদনে সক্ষম। এর দ্রুতগতির প্রসেসরের সাহায্যে দ্রুত গতিতে কাজসম্পাদন, মাল্টি টাস্কিং এবং ওয়েব পেইজ ও গেমস খুব দ্রুত লোড করা সম্ভব।

উন্নত গ্রাফিক্সের জন্য রয়েছে এন্ড্রিনো ৫১০ গ্রাফিক্স চিপসেট। যার সাহায্যে খুব আরামদায়ক ভাবেই হাই রেজুলেশনের গেমস খেলা যাবে। মোবাইলটির এন্দ্রোয়েড ভার্শন মার্শম্যালো।

মেমোরিঃ

মোবাইলটির ইন্টারনাল মেমোরি ৬৪ গিগাবাইট এবং ২৬৪ গিগাবাইট পর্জন্ত এক্সটারনাল মেমোরি সাপোর্ট করে।

 মোবাইলটিতে রয়েছে অসাধারন সাউন্ড সিস্টেম যা আপনাকে দিবে চমৎকার বিনোদনের অভিজ্ঞতা।

পাশাপাশি এতে রয়েছে ফিঙ্গারপ্রিন্ট সেন্সর, লাইট সেন্সর, প্রোক্সিমিটি সেন্সর, এক্সেলেরোমিটার, কুইক চার্জিং, মাল্টিটাচ সহ আরো অনেক অসাধারন ফিচার যা আপনাকে মোবাইল জগতের এক অন্যরকম অভিজ্ঞতা দিবে।

 স্যামসাং মোবাইল বাংলাদেশ 

নকল স্যামসাং ফোন চেনার উপায়ঃ

বিভিন্ন বাজারে প্রায় সকল ধরনের মোবাইল ফোন এর নকল বিক্রি হয়। বেশির ভাগ দামি স্মার্টফোন গুলোর নকল দেশে ছড়িয়ে পড়ে। বিশেষকরে, অ্যাপলের আইফোন, স্যামসাং গ্যালাক্সি গ্র্যান্ড প্রাইম, স্যামসাং গ্যালাক্সি জে৫, স্যামসাং গ্যালাক্সি এস৬ সহ অনেক স্মার্ট ফোন এর নকল কপি বাজারে প্রকাশ্যে  বিক্রি হচ্ছে। এমনকি নকল ঘোষণা দিয়েই বিক্রি হচ্ছে।

কোন দোকানদার নকল স্মার্ট ফোন গুলো আসল বলে গুছিয়ে দিচ্ছেন সাধারণ মানুসের হাতে।

নকল স্মার্ট ফোন গুলোর বেশির ভাগই স্যামসাং এর। আই ফোন এর মত নকল স্যামসাং এর কপি গুলো তৈরি হয় চীনে। নকল হওয়া স্মার্ট ফোন এর মধ্যে স্যামসাং এর সংখ্যা বেশি। তবে সনি ও এইচটিসি ব্র্যান্ড এর স্মার্ট ফোন গুলোও নকল কপি বাজারে দেখা যায়।

আসল স্যামসাং মোবাইল  চেনার উপায়ঃ স্যামসাং মোবাইল চেনার উপায়

আসল স্যামসাং মোবাইল  চেনার উপায় বা স্যামসাং মোবাইল চেনার উপায় জানতে হলে নীচের দিক নির্দেশনা ফলো করুন।

১. ফোনটি তে *#০*# চাপুন। এল সি ডি টেস্ট দেখা যাবে।

২. ফোনটি তে *#০২২৮# দিয়ে ব্যাটারি স্ট্যাটাস দেখা যাবে।

৩। ফোনে *#১২৩৪# চাপলে ভার্সন এপি, সিপি ও সিএসসি সিরিয়াল নম্বর দেখা যাবে।

৪। *#০৬# নম্বর চাপলে আপনার মোবাইল এর আইএমইআই (IMEI) দেখাবে। তারপরhttp://www.imei.info/ এই লিঙ্ক এ গিয়ে চেক করলে আসল হলে ফোনের কিছু তথ্য দেখাবে। নকল হলে কিছুই আসবে না।

৫। *#১৯৭৩২৮৬৪০# চাপলে স্যামসাং এর সার্ভিস মোড দেখাবে। যা নকল ফোন এ দেখাবে না।

নকল ফোন এ এই নম্বর গুলো কাজ করবে না। তাই মোবাইল ফোন কেনার আগে এই কোড গুলো দিয়ে আসল নাকি নকল তা পরীক্ষা করে নিন।

 

Comments

comments

Join the discussion

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।