১৪,৯৯০ টাকা বাজেটের মাঝে সেরা ৫ স্মার্টফোন

প্রতিযোগিতামূলক বাজার হিসেবে স্মার্টফোন বাজার বর্তমানে অনেকটা নমনীয়তা বজায় রাখে। তুলনামূলক কম দামে স্মার্টফোন বাজারে এনে বাজার দখলের প্রচেষ্টায় মরীয়া স্মার্টফোন কোম্পানিগুলো। বর্তমানে আমাদের দেশে ১৫০০০ টাকা বাজেটের মাঝে অনেক ভাল ভাল স্মার্টফোন পাওয়া যাচ্ছে এবং ভোক্তাগণ ব্যাবহার করে সন্তুষ্টও প্রকাশ করছে।

তবে সবাই চায় সেরাটা পেতে। আমরা  ১৪,৯৯০ টাকা বাজেটের মাঝে সেরা ৫ স্মার্টফোন এর  সুবিধা , অসুবিধা এবং বৈশিষ্ট্য নিয়ে আলোচনা  করব ।

আজকে আমরা ১৪,৯৯০ টাকা বাজেটের মাঝে সেরা ৫ স্মার্টফোন আপনাদের মাঝে তুলে ধরবো।

বিস্তারিত জানতে নিচে পড়ুন।

Huawei G Play Mini

huawei_g_play_mini-productreviewbd

সুবিধাসমূহঃ

 স্মার্টফোনটির ক্যামেরার কোয়ালিটি অনেক ভালো।

 ১৫০০০ টাকা বাজেটের মাঝে এখন পর্যন্ত সবচেয়ে শক্তিশালী প্রসেসর ব্যাবহৃত হয়েছে।

 র‍্যামও তুলনাধিক বেশি।

 এডভান্সড ব্যাটারি সেইভিং টেকনোলোজি রয়েছে যার কারণ অধিক সময় চার্জ ধরে রাখতে পারে।

 হাই রেজ্যুলেশনের ভিডিও সাপোর্টেড।

 ক্যামেরায় সনি বিএসআই( চতুর্থ জেনারেশন) সেন্সর রয়েছে।

 ওটিজি সাপোর্টেড।

 চমৎকার ডিজাইন।

অসুবিধাসমূহঃ

 স্মার্টফোনটির অপারেটিং সিস্টেম অনেক পুরাতন।

 গোরিলা গ্লাসের সুবিধা নেই।

 ব্যাটারি আলাদা করা যায় না।

হুয়াওয়ে জি মিনি স্মার্টফোনটি প্রথম বাজারে আসে গত বছরের এপ্রিল মাসে। এটি বর্তমানে সাদা, কালো এবং সোনালী এই তিনটি বর্ণে বাজারে পাওয়া যাচ্ছে। স্মার্ট ফোনটিতে অক্টা কোর ১.২ গিগা হার্টজ প্রসেসর এবং মালি ৪৫০ গ্রাফিক্স ব্যাবহৃত হয়েছে।

সেন্সরের মাঝে রয়েছে এক্সিলেরোমিটার, প্রক্সিমিটার, কমপাস, লাইট এবং অন্যান্য ফিচারস এর মাঝে রয়েছে ব্লুটুথ, জিপিএস, এ- জিপিএস, এমপি ৩, এমপি ৪, রেডিও,জিপিআরএস, লাউডস্পীকার এবং মাল্টিটাচ।

হুয়াওয়ে জি মিনি স্মার্টফোন

ডিসপ্লে-

হুয়াওয়ে জি মিনি স্মার্টফোন এর ডিসপ্লের সাইজ ৫ ইঞ্চি এবং এটির স্ক্রীন সাপোর্টেড সাইজ ৭২০ × ১২৮০ পিক্সেল। ডিসপ্লের ধরণ আইপিএস মাল্টিটাচ।

ডিজাইন-

স্মার্টফোনটি চমৎকার ডিজাইনের অধিকারী। এর ওজন মাত্র ১৬২ গ্রাম যা কিনা এই বাজেটের যে কোন স্মার্টফোনের সাথে তুলনীয়। এটি ৮.৮ মিলিমিটার চিকন এবং এর বডি সাইজ ১৪৩.৩ × ৭১.৯ × ৮.৮।

ক্যামেরা-

এর সামনের ক্যামেরা ৫ মেগা পিক্সেল যা কিনা একটি অসাধারণ সেলফি তোলার জন্য যথেষ্ট এছাড়া এর সামনের ক্যামেরা ১৩ মেগা পিক্সেল যা কি না ভাল কোয়ালিটি সম্পন্ন ছবি তোলতে সক্ষম। এর ক্যামেরা আপনাআপনি যে কোন মানুষের চেহারা চিনতে পারে। আলোর স্বল্পতা থাকলে এটি অটোমেটিক ফ্ল্যাশ লাইট ব্যাবহার করে। এছাড়া ক্লীয়ার ছবির জন্য তো রয়েছে এইচডিআর।

ব্যাটারি-

এতে লিথিয়াম – আইওন ২৫০০ মেগা এম্পিয়ারের ব্যাটারি ব্যাবহার করা হয়েছে। তবে আপনি অন্যান্য স্মার্টফোনের মত চাইলেও এর ব্যাটারি আলাদা করতে পারবেন না কারণ এর ব্যাটারি স্থায়ীভাবে আটকানো।

স্মার্টফোনটির বর্তমান বাজার মূল্যঃ ১৪,৯৯০ টাকা

গেইম খেলা এবং অ্যাপ জন্য বর্তমান স্মার্টফোন বাজারে যেই এ্যাপসগুলো রয়েছে তাদের মাঝে কোন বাধা নিষেধ নেই কারণ এর স্মার্টফোনটির কোয়ালিফিকেশন অনেক উর্দ্ধে। এছাড়া আপনি সর্বোচ্চ হাই কোয়ালিটি এইচডি ভিডিও এই স্মার্টফোনটিতে অনায়েসেই দেখতে পারবেন। স্মার্টফোনটির ডিজাইন সত্যিই অনেক প্রশংসনীয়। এছাড়া এর পার্ফরমেন্স ও অনেক ভালো।

স্মার্টফোনটিতে দুইটি মাইক্রো সিম ব্যাবহার করা যাবে এবং এক সাথে দুটি সিমই চালু রাখা যাবে।

 সর্বেশেষ একটি কথাই বলা চলে, ২০১৫ সলে এটি রিকুমেন্ডেড স্মার্টফোন ছিল এবং বর্তমানেও এটিও আমাদের লিস্টে অন্যতম একটি রিকুমেন্ডেড স্মার্টফোন।

Huawei G Play Mini  Specifications

 

huawei_g_play_mini-specification-bd

 

ওয়ালটন প্রিমো NX2 (Walton Primo NX2)

walton-primo-nx2-productreviewbd

 

সুবিধাসমূহঃ

 অধিক সময় চার্জ ধরে রাখার ক্ষমতা।

 ক্যামেরাতে লাইভ ফটো, মোশন ট্র্যাক এবং প্যানারোমা মোডের স্বাদ।

 বিশাল ডিসপ্লে স্ক্রিন।

 ফিঙ্গারপ্রিন্ট ফিচারস যা সচারচর এই বাজেটের স্মার্টফোনগুলোতে থাকে না।

 ইউনিভার্সেল রিমোট যা দ্ধারা টিভি, ফ্যান, এসি, মিউজিক ট্রাক পরিবর্তন করা সম্ভব।

 কম আলোতেও স্পষ্ট ছবি তুলা যায়।

 ভালো সাউন্ড কোয়ালিটি।

 কর্ণারে গোরিলা গ্লাসের সুবিধা রয়েছে।

 ওটিজি এবং ওটিএ সাপোর্টেড।

অসুবিধাসমূহঃ

 র‍্যাম ফিচারস এর তুলনায় কম।

 রম ফিচারস এর তুলনায় কম।

 স্মার্টফোনটির অপারেটিং সিস্টেম অনেক পুরাতন।

গত বছরের ফেব্রুয়ারী মাসে স্মার্টফোনটি প্রথম বাজারে আসে। এর অসাধারণ কিছু ফিউচারস ক্রেতাদের চোখ ধাধিয়ে নেয়। এটির ফিচারস একটি প্রিমিয়াম দামী স্টাইলিশ স্মার্টফোনের সাথে তুলনীয়। এতে কোয়াড কোর ১.৩ গিগা হার্টজ প্রসেসর ব্যাবহার করা হয়েছে। বর্তমানে শুধু কালো বর্ণেই এটি বাজারে পাওয়া যাচ্ছে। এর জিপিইউ মালি ৪০০।(mali 400 gpu )

ওয়ালটন প্রিমো NX2 (Walton Primo NX2) এর ভিডিও 

এর ব্যাক ক্যামেরার ফিচারস এর মাঝে রয়েছে এক্সমোর আর সেন্সর, অটোফোকাস, ফ্ল্যাশ, এইচডিআর, লাইভ ফটো, মোশন ট্র্যাক, ফেইস বিউটি এবং পানোরামা মোড। স্মার্টফোনটিতে এক্সিলেরোমিটার, লাইট এবং ওরিয়েন্টেশন সেন্সর রয়েছে। অন্যান্য ফিচারস এর মাঝে আছে ব্লুটুথ, জিপিএস, এ- জিপিএস, এমপি ৩, এমপি ৪, রেডিও, জিপিআরএস, লাউডস্পীকার ওটিএ এবং মাল্টিটাচ।

ডিসপ্লে-

এতে ৫.৫ ইঞ্চি এইচডি ১২৮০ × ৭২০ পিক্সেল রেজ্যুলেশনের ডিসপ্লে ব্যাবহার করা হয়েছে। এই বিশাল ডিসপ্লের ধরণ আইপিএস টাচ স্ক্রিন। এর কর্ণারে গোরিলা গ্লাস ৩ রয়েছে।

ডিজাইন

স্মার্টফোনটির বডি সাইজ ১৫২.২ × ৭৫.৯। এর ওজন ১৫৬ গ্রাম। এটি ৯.৩ মিলিমিটার চিকন যা এই তালিকায় প্রকাশিত স্মার্টফোনদের তুলনায় একটু বেশি। কিন্তু স্মার্টফোনটির বাহ্যিক লুক অসাধারণ।

ক্যামেরা

ওয়ালটন প্রিমো NX2 এর সামনের ক্যামেরা ২ মেগা পিক্সেল এবং পিছনের ক্যামেরা ৮ মেগা পিক্সেল। এর ক্যামেরা ব্যাবহার করে বাস্তব ছবির স্বাদ নেওয়া সম্ভব।

ব্যাটারি

ওয়ালটন প্রিমো NX2 তে লিথিয়াম – পলিমের ৩০০০ মেগাএম্পায়ারের ব্যাটারি ব্যাবহার করা হয়েছে।

স্মার্টফোনটির বর্তমান বাজার মূল্যঃ ১৪,৪৯০ টাকা

স্মার্টফোনটিতে আকর্ষণীয় কিছু স্পেশাল ফিচারস রয়েছে যা সহজেই আপনাকে আমাকে তাক লাগিয়ে দিতে পারে। এর পিছনের ক্যামেরার সাথে এক ধরণের ফিঙ্গারপ্রিন্ট স্ক্যানার রয়েছে যা ব্যাবহার করে আপনার স্মার্টফোনের সকল তথ্যের নিরাপত্তা আরো জোরদার করতে পারবেন। এছাড়া ইউনিভার্সেল রিমুট কন্ট্রোল সহজেই রিমোট সাপোর্টেড যে কোন ডিভাইসে ব্যাবহার করতে পারবেন।

এছাড়া ভালো সাউন্ড কোয়ালিটির জন্য রয়েছে এনএক্সপি ইফেক্ট এবং স্পষ্ট ছবি তোলার জন্য রয়েছে এক্সমোর আর সিমোস সেন্সর।

আপনি এই স্মার্টফোনটি ব্যাবহার করে অনায়েসে গেইম খেলতে পারবেন এবং চাইলে আপনি আপনার ব্যাক্তিগত অ্যাপগুলো লুকিয়েও রাখতে পারবেন। ফটোগ্রাফির জন্যও এই স্মার্টফোনটি অসাধারণ। চাইলে দারুণ দারুণ কিছু ছবি তুলে আপনার বন্ধুদের অবাক করে দিতে পারবেন। এছাড়া আপনি ফুল এইচডি ১০৮০ পিক্সেলের ভিডিও ও ক্যাপচার করতে পারবেন।

তবে দামের তুলনায় স্মার্টফোনটির ফিচারস এবং ডিজাইন অনেক এগিয়ে যা কি না পার্ফরমেন্সের উপর সামান্য বিরূপ প্রভাব বিস্তার করতে পারে।

Walton Primo NX2  Specifications

walton-primo-nx2-phone-specifications

 

Symphony Xplorer ZVI

symphony-xplorer-zvi-phone-specifications

সুবিধাসমূহঃ

  • অত্যাধিক ক্ষমতা সম্পন্ন প্রসেসর।
  • র‍্যাম তুলনাধিক বেশি।
  • রম তুলনাধিক বেশি।
  • সম্পূর্ণ এইচডি ভিডিও সাপোর্টেড।
  • মাল্টিটাস্কিং এর ক্ষেত্রে সুবিধা।
  • ভাল পার্ফোর্মেন্স পাওয়া যাবে।
  • ওটিজি এবং ওটিএ সাপোর্টেড।
  • কর্ণারে গোরিলা গ্লাস ব্যাবহৃত হয়েছে।

অসুবিধাসমূহঃ

  • চার্জ ধারণ ক্ষমতা তুলনাধিক কম।
  • স্মার্টফোনটির অপারেটিং সিস্টেম অনেক পুরাতন।

সিম্ফনির এই স্মার্টফোনটি গত বছরের জুন মাসে প্রথম বাজারে আসে। স্মার্টফোনটি বর্তমানে সাদা বর্ণে বাজারে পাওয়া যাচ্ছে।

এর পিছনের ক্যামেরাইয় রয়েছে ফ্ল্যাশ লাইট, ৪ গুণ জোম, অটোফোকাস, ভি -–সাইন ক্যাপচার, এইচডিআর, মাল্টি এঙ্গেল ভিউ, পানোরামা মোড, ফেইস বিউটি, বিউটি ক্যামেরা, গ্রাডিয়েন্টার এবং মোশন ট্র্যাক। এর প্রসেসর ওক্টাকোর ১.৪ গিগাহার্টজ এবং গ্রাফিক্স মালি ৪৫০।

স্মার্টফনটিতে জি – সেন্সর, লাইট, এক্সিলেরোমিটার, প্রক্সিমিটি, ম্যাগনেটিক সেন্সর ব্যাবহৃত হয়েছে। এছাড়া অন্যান্য ফিচারস এর মাঝে রয়েছে ব্লুটুথ, জিপিএস, এ- জিপিএস, এমপি ৩, এমপি ৪, রেডিও, জিপিআরএস, লাউডস্পীকার ওটিএ, এইচটিএমএল, ওটিএ এবং মাল্টিটাচ।

ডিসপ্লে

এতে ৫ ইঞ্চি এইচডি ৭২০ × ১২৮০ পিক্সেল রেজ্যুলেশনের ডিসপ্লে ব্যাবহার করা হয়েছে। এর ডিসপ্লের ধরণ আমোএলইডি টাচস্ক্রিন এবং এর কর্ণারের নিরাপত্তার জন্য গোরিলা গ্লাস ৩ ব্যাবহার করা হয়েছে।

ডিজাইন

এর বডি সাইজ ১৪১.৩ × ৭০.৬। এটির ওজন ১৫০ গ্রাম এবং এটি ৬.৮৫ মিলিমিটার চিকন। এটি এই তালিকায় অন্যতম সেরা একটি স্লিম স্মার্টফোন এবং এর বাহ্যিক ডিজাইনও চরম।

ক্যামেরা

এর সামনের ক্যামেরা ৮ মেগা পিক্সেল এবং পিছনের ক্যামেরা ১৩ মেগা পিক্সেল। সুতরাং সহজেই বোঝা যাচ্ছে এর ক্যামেরা অনেক শক্তিশালী এবং ভাল মানের ছবি ও ভিডিও করতে সক্ষম। এর সামনের ক্যামেরা এই বাজেটের অনেক স্মার্টফোনের পিছনের ক্যামেরার সাথে তুলনীয়।

symphony-xplorer-zvi-phone-camera

ব্যাটারি

এতে লিথিয়াল – পলিমের ২০৫০ মেগাএম্পায়ারের ব্যাটারি ব্যাবহার করা হয়েছে। এর স্ট্যান্ড বাই টাইম ৫৫৭ ঘন্টা এবং টক টাইম ১৫.৩ ঘন্টা।

স্মার্টফোনটির বর্তমান বাজার মূল্যঃ ১১,৮৯০ টাকা

স্মার্টফোনটির ক্যামেরা সত্যিই অসাধারণ এবং সেলফি তোলার জন্য সিম্ফনির এই স্মার্টফোনটি বেস্ট কারণ সেলফির কথা চিন্তা করেই সিম্ফনি এর সামনের ক্যামেরা ৮ মেগা পিক্সেল রেখেছে। এছাড়া স্ট্যান্ডার্ড ছবি তুলার জন্য এর পিছনের ক্যামেরার জুড়ী নেই।

অধিক শক্তিসম্পন্ন প্রসেসর এবং র‍্যাম আপনাকে হাই কোয়ালিটি এইচডি গেইমস অনাইয়েসে খেলতে সহায়তা করবে।

এই স্মার্টফোনটির ডিজাইন, ফিচারস, পারফর্মেন্স যদি দামের সাথে তুলনা করে দেখেন তাহলে সহজেই বোঝতে পারবেন এটি কতটুকু সামঞ্জস্যপূর্ণ। সর্ব দিক বিবেচনা করে, এই স্মার্টফোনটিকে সর্ব দিকেই অসাধারণ বলা চলে।

Symphony Xplorer ZVI   Specifications

 

symphony-xplorer-zvi-specifications

Sony Xperia E4 dual

sony-xperia-e4-dual-productreviewbd

সুবিধাসমূহঃ

  • বিভিন্ন দিক বিবেচনায় এর ক্যামেরা অত্যন্ত ভাল মানের।
  • ব্যাটারি ব্যাকআপ তুলনাধীক ভালো।
  • হাই কোয়ালিটি ভিডিও সাপোর্টেড।
  • ফোনটি অনেক স্টাইলিশ।
  • এক সাথে ৪ টি আঙ্গুলে ব্যাবহার করার মাল্টিটাচিং সুবিধা।

অসুবিধাসমূহঃ

  • ব্যাটারি আলাদা করা যায় না।
  • সেন্সর এবং ফিচারস অনেক কম।

সনির স্মার্টফোন বাজারে স্টাইলিশ ডিজাইন, সাউন্ড কোয়ালিট ও ক্যামেরার জন্য অত্যন্ত জনপ্রিয়। স্বল্প বাজেটের ক্রেতাদের কথা চিন্তা করে সনি গত বছরের মার্চ মাসে এই স্মার্টফোনটি বাজারে আনে। খুব বেশি একটি ফিচারস না থাকলেও যে সকল ফিচারস এর মাঝে রয়েছে তাতে সেরাটাই আছে বলে জানা যায়।

সনির এর ক্যামেরার ফিচারস এর মাঝে আছে অটোফোকাস, এলইডি ফ্ল্যাশ, জিও – ট্যাগিং, টাচ ফোকাস, ফেইস ডিটেকশন, এইচডিআর এবং পানারোমা।

স্মার্টফোনটি বর্তমান বাজারে সাদা এবং কালো রঙে পাওয়া যাচ্ছে। এতে এক্সিলেরোমিটার এবং প্রক্সিমিটি সেন্সর ব্যাবহৃত হয়েছে। এর প্রসেসর কোয়াড কোর ১.৩ গিগা হার্টজ এবং মালি ৪০০ এমপি ২ গ্রাফিক্স প্রসেসিং ইউনিট।

ডিসপ্লে

Sony Xperia E4 dual আইপিএস টাচ স্ক্রিনের ৫ ইঞ্চি ডিসপ্লে ব্যাবহার করা হয়েছে। এতে এক ধরণের গ্লাস লাগানো আছে যা স্ক্রেচ পড়াকে বিরত রাখে।

Sony Xperia E4 dual-productreviewbd

ডিজাইন

Sony Xperia E4 dual এর বডি সাইজ ১৩৭ × ৭৪.৬ এবং ১০.৫ মিলিমিটার চিকন। এর আকৃতি অনেকটা গোলাকার তাই ডিজাইন অনেকের কাছে আকর্ষ্টকর।

ক্যামেরা

Sony Xperia E4 dual এর সামনের ক্যামেরা ২ মেগা পিক্সেল এবং পিছনের ক্যামেরা ৫ মেগা পিক্সেল। পিছনের ক্যামেরাতে রয়েছে অটোফোকাস, এলইডি ফ্ল্যাশ, জিও – ট্যাগিং, টাচ ফোকাস, ফেইস ডিটেকশন, এইচডিআর এবং পানারোমার মত অসাধারণ কিছু ফিচারস।

ব্যাটারি

Sony Xperia E4 dual  এর ব্যাটারি লি- আইওন ২৩০০ মেগা এম্পায়ারের। এর ব্যাটারি আলাদা করা যায় না। এর স্ট্যান্ড বাই টাইম ৫৪৮ ঘন্টা অথবা ৫৫২ ঘন্টা। টকম টাইম ২জিতে ১২ ঘন্টা এবং ৩জি তে ১২ ঘন্টা ৪০ মিনিট। এর মিউজিক প্লে টাইম ৪৮ ঘন্টা।

স্মার্টফোনটির বর্তমান বাজার মূল্যঃ ১৪,৯০০ টাকা

সনি স্মার্টফোন ব্যাবহার করতে ইচ্ছুক কিন্তু বাজেট কম? তাহলে এই স্মার্টফোনটি আপনার জন্য। সনি তাদের কম বাজেটের গ্রাহক হতে ইচ্ছুক এমন ক্রেতাদের কথা চিন্তা করে এই স্মার্টফোনটি তৈরি করেছে।

আপনি এই স্মার্টফোনটি ব্যাবহার করে কোয়ালিটি সম্পন্ন ছবি তোলতে পারবেন। এছাড়া এর ডিজাইনও নজর কারার মত।

সনির অন্যান্য স্মার্টফোনগুলোর সাথে এর তুলনা করলে সহজে বোঝতে পারবেন এটির দাম যথেষ্ট কম করা হয়েছে।আপনি স্মার্টফোনটিতে অনায়াসে গেইমস এবং ভিডিও উপভোগ করতে পারবেন।

Sony Xperia E4 dual  Specifications

sony-xperia-e4-dual-specification

 

আপনি আরো পড়তে পারেন ১৫,000 টাকা বাজেটের মাঝে সেরা ৫ স্মার্টফোন

Join the discussion

48 thoughts on “১৪,৯৯০ টাকা বাজেটের মাঝে সেরা ৫ স্মার্টফোন

  1. Hey there would you mind stating which blog platform you’re using? I’m going to start my own blog soon but I’m having a tough time deciding between BlogEngine/Wordpress/B2evolution and Drupal. The reason I ask is because your design and style seems different then most blogs and I’m looking for something unique. P.S My apologies for getting off-topic but I had to ask!

  2. Definitely believe that which you stated. Your favorite justification seemed to be on the internet the simplest thing to be aware of. I say to you, I certainly get annoyed while people consider worries that they plainly don’t know about. You managed to hit the nail upon the top as well as defined out the whole thing without having side-effects , people could take a signal. Will probably be back to get more. Thanks

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না।