মেয়েদের চুলের যত্নে ডাবর আমলা হেয়ার ওয়েল : রিভিউ

মেয়েদের চুলের যত্নে ডাবর আমলা হেয়ার ওয়েল : রিভিউ

দক্ষিন এশিয়ায় ১০০ বছরেরও বেশি সময় ধরে চুলের যত্নে আমলা তেল ব্যবহৃত হয়ে আসছে। স্বাস্থ্য উজ্জ্বল চুলের জন্য ডাবর আমলা হেয়ার ওয়েল ইন্ডিয়া এবং বাংলাদেশে খুব জনপ্রিয়। তবে চলুন জেনে নেওয়া যাক ডাবর হেয়ার আমলা ওয়েল সম্পর্কে।

ডাবর  আমলা হেয়ার অয়েল এর ভাল দিকঃ

  • ডাবর আমলা খুব ভাল মানের তেল এবং এটি চুলকে মসৃন করে।
  • আপনি এই তেল কয়েক সপ্তাহ ব্যবহার করে বুঝতে পারবেন আপনার চুল কালো হচ্ছে। শ্যাম্পু করার আগে আপনি হালকা গরম করে এই তেল দিতে পারবেন।

ডাবর আমলা হেয়ার অয়েল খারাপ দিকঃ

  • আপনার চুল ধোয়া এবং মিহিহলে এবং স্বর্ণকেশী চুল জন্য এটা ব্যবহার করা হলে আপনার চুলের রঙ পরিবর্তন হবে। হালকা কালো রঙে পরিবর্তন হবে। আপনার আয়ুর্বেদীর শক্তিশালী গন্ধের কারণে মাথাব্যথা অনুভূতি হতে পারে।
  • সবচেয়ে ভাল হত যদি বোতলে বড় ছিদ্রের পরিবর্তে ছোট ছিদ্র থাকত, তবে তেল অল্প অল্প ফোটায় বার হত।

ডাবর আমলা হেয়ার অয়েল রিভিউ— 

  • ঘ্রান
  • চুল বৃদ্ধি
  • চুলের উজ্জলতা
  • চুলের স্বাস্থ্য

——- 4.5

ডাবর আমলা হেয়ার ওয়েল-বিস্তারিত

এই হেয়ার অয়েল মিনারেল তেল, আমলকি ফল এবং বিভিন্ন সবজির নির্যাসের সমন্বয়ে তৈরি হয়েছে। যা দ্বারা চুল দীর্ঘ, কালো, চকচকে স্বাস্থ্যকর হয়। ডাবর দাবী করে যে, নিয়মিত ব্যবহারে চুল পড়া রোধ করা যায়। সুন্দর কালো চুলের জন্য ডাবর আমলা ৫০ বছরেরও বেশি সময় ধরে দক্ষিণ এশিয়ার এবং বিশ্বজুড়ে ব্যবহার করা হচ্ছে। এই তেলের ঘ্রান চমৎকার হারবালের মত নয়। ঘ্রানের কারণে মনে হয় যে আমলকি না এখানে শুধু মিনারেল তেল ব্যবহার করা হয়েছে।

ডাবর আমলা হেয়ার ওয়েল-বোতল

ডাবর আমলা হেয়ার ওয়েলের বোতল পেচানো মুখের HDPE বোতল। এর রং গাড় সবুজ এবং এটি চিটচিটে ভাব মুক্ত পানির মত তরল। এই তেলে আয়ুর্বেদিক সুবাস রয়েছে।

ডাবর আমলা সম্পর্কে পর্যালোচনা এবং আমার অভিজ্ঞতা

আমি চার মাস আগে সুপারস্টোর থেকে এই তেল কিনেছিলাম। কিন্তু এর তীব্র গন্ধের ফলে আমি কেনার পর ২০ দিনের জন্য এটা ব্যবহার করা বন্ধ রেখেছিলাম। এটার গন্ধ কিছুটা হাসপাতালের পরিচ্ছন্নতার জন্য যে সাবান বা ক্লিনার ব্যবহার করা হয় ঠিক সে রকম গন্ধ। কিন্তু, আমার চুলে প্রোটিনের প্রয়োজন ছিল এবং নারকেল তেল দিয়ে কোনো কাজ হচ্ছিল না।

আবার, আমি এই তেল ব্যবহার করে দেখার সিদ্ধান্ত নিলাম। যদিও এটার গন্ধ খুব বাজে ছিল কিন্তু কয়েক মিনিট পর, গন্ধ কমে গিয়েছিল। আমি শুনেছি যে, এটা যদি আপনি গরম করে ব্যবহার করেন। তাহলে আপনি ভাল ফলাফল পাবেন। গরম করার পর, আমি কয়েক ঘন্টার জন্য চুলে দিয়ে রেখেছি এবং আমি লক্ষ্য করেছি, আমার চুল অনেকটা মসৃণ হয়েছে। এর ভাল বিষয় হল যে তেলটা চিটচিটে নয়। তারপর, আমি শ্যাম্পু করে দেখি আমার চুল দারুন মসৃন হয়েছে এবং অনেক ঝলমলে।

তেলের রং সবুজ

এই তেলের রঙ সবুজ কাজেই আপনি যদি জট মুক্ত এবং চিকন কালো চুল পেতে চান তাহলে প্রথমবারের ঘ্রানের কারণে এই তেল কিনতে কোন দ্বিধা করবেন না। বোতলের গায়ে নির্দেশিকায় লেখা আছে যে সপ্তাহে ২-৩ দিন এই তেল ব্যবহার করলে ভাল ফল পাওয়া যাবে। আমার অভিজ্ঞতা থেকে আমি বলব যে সর্বোচ্চ ফল পাওয়ার তুলনায় এর ঘ্রান কিছুই না। তিন সপ্তাহ ব্যবহারের পর এখন আমার চুল অত্যন্ত মসৃন, ঘন এবং কোমল ও কালো। আমি পেয়েছি কালো স্বাভাবিক চুল।

গুরুত্বপূর্ন ব্যাপার হল চুল আগের মতই উজ্জ্বল এবং আগের থেকে দ্রুত বাড়ছে যে কারণে ডাবর আমলা তেল আমার কাছে ভাল লেগেছে। এছাড়াও আমার চুল আগের থেকে অনেক স্বাস্থোজ্জল এবং মজবুত। এটা ঠিক যে গন্ধটা একটু খারাপ, কিন্তু এটি ব্যবহারে আমি কোন প্রকার অসুস্থ হয় নি এবং কিছু দিন ব্যবহারের পর আমি এটি ব্যবহারে অভ্যস্থ হয়ে গিয়েছি।

আমি কয়েকজনকে এর ভিতরের উপাদান সম্পর্কে অভিযোগ করতে শুনেছি। অভিযোগকারীদের মতে এই তেল ক্যানোলা তেল থেকে তৈরী করা হয়েছে। এ কারণে আমি ক্যানোলা অয়েলের পুষ্টিগুন সম্পর্কে জানার চেষ্টা করলাম। আমি জানতে পারলাম ক্যানোলা তেল ভিটামিন-ই সমৃদ্ধ এবং এতে আছে উচ্চ পরিমানে ওমেগা-৩ এবং ফ্যাটি এসিড-৬ (ওমেগা-৩ বাদামের তেল থেকেও উচ্চ গুনসম্পন্ন)।

ইন্ডিয়া থেকে শুরু করে সমগ্র এশিয়ায় ডাবর আমলা তেল আয়ুর্বেদিক গুনাগুনের জন্য সুপরিচিত। আমলকি ঠান্ডা এবং গরমের বিরুদ্ধে এর শক্তিশালী ক্ষমতার জন্য পরিচিত। গ্রীষ্মের গরমে যখন আপনার চুলের কন্ডিশনিং প্রয়োজন হবে তখন আপনি আমলকি ব্যবহার করে সর্বোচ্চ সুবিধা পাবেন। এটি ধুলোবালি এবং তাপ থেকেও চুলকে রক্ষা করে।

কীভাবে ব্যবহার করবেন ডাবর আমলা হেয়ার অয়েল?

ভাল ফলাফলের জন্য, ডাবর আমলা হেয়ার অয়েল আপনার মাথায় সম্পূর্ন চুলের মধ্যে ম্যাসাজ করুন। এটা ভাল হয় যদি আপনি তেল গরম করে ব্যবহার করুন। তারপর ভাল ফলাফলের সারা রাত রেখে দিন আর শ্যাম্পু করুন পরদিন সকালে।

 

ডাবর আমলা হেয়ার অয়েল এর দামঃ

বোতলের আকারঃ মূল্য (বাংলাদেশী টাকায়)

৪৫ মিলি : ৩৫ টাকা;

৯০ মিলি : ৭০ টাকা;

১৮০ মিলি : ১৪০ টাকা;

২৭৫ মিলি : ১৯৫ টাকা;

৪৫০ মিলি : ২৭৫ টাকা;

 উপাদান

প্যারাফিনাম লিকুইডাম, ক্যানোলা অয়েল, পাম গ্লিসারাইডস, মিনারেল অয়েল, ভেজ অয়েল, ক্যানোলা তেল থেকে নেয়া আমলকির নির্যাস, সুগন্ধি, টি-বিউটল হাইড্রোকুইনাইন।

আরেকটি বিষয় আপনাকে অবশ্যই মনে রাখতে হবে যে, ব্যবহারের পর আপনাকে অবশ্যই চুল ধুয়ে ফেলতে হবে।

দ্বিতীয়বার ব্যবহার করবেন কিনা?

আপনার মাথার ত্বক যদি তৈলাক্ত হয়, তাহলে এই তেল আপনার জন্য নয়। ইতিপূর্বে আমি যে ঘ্রানের কথা বলেছি সেটা একটু কড়া এবং হারবাল/ঔষধি (অনেকের মতে)। তবে এর বিশাল সুবিধা থেকে বঞ্চিত হবেন না। তবে আপনি এই তেল ব্যবহার করা চালিয়ে যেতে পারেন।

আপনার সুবিধার্থে আরেকটি সতর্কবানী দিয়ে রাখি, হালকা রঙের চুল হলে এটি ব্যবহার করা আপনার উচিত হবে না। কারণ, হালকা (মিহি, হালকা বাদামী) চুলে ডাবর আমলা তেল ব্যবহারে আপনার চুলের রঙ বদলে যেতে পারে এবং পরবর্তীতে স্বাভাবিক রঙ ফিরিয়ে আনতেও অনেক সময় লাগবে। তাই চুল ঘন করার জন্য ও চুল পড়া রোধে আপনি এটা ব্যবহার করতে পারেন।

এক নজড়ে ডাবর কোম্পানী

বিশ্ববাজারে ডাবর অনেক চাহিদাসম্পন্ন পন্য উতপাদন এবং তাদের পন্য পাওয়া যাচ্ছে ৬০ টিরও বেশি দেশে। এটি মিডল ইস্ট, সার্কভুক্ত রাষ্ট্র সমূহ, আফ্রিকা, আমেরিকা, ইউরোপ এবং রাশিয়ায় অনেক জনপ্রিয়। এই কোম্পানির বর্তমান বয়স হচ্ছে ১৩০ বছর, যা ১৮৮৪ সালে আয়ুর্বেদিক ঔষধি কোম্পানি হিসেবে যাত্রা শুরু করেছিল।

আরও রিভিও পড়ুন—

Comments

comments

Join the discussion

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।