মোটরসাইকেল চালানোর কিছু প্রয়োজনীয় পরামর্শ,নূতনদের জন্য

আপনি কি নুতন চালক নাকি আপনার পূর্ব অভিজ্ঞতা আছে? আপনি যদি মোটবাইক চালানোর নিয়ম কানুন খুব ভালভাবে না জানেন তবে এটা যেকোনো মুহূর্তে আপনার জীবনের জন্য ঝুঁকিপূর্ণ হতে পারে। মোটরবাইক কেনার আগে আপনাকে অবশ্যই কিছু গুরুত্বপূর্ণ বিষয় খুব ভালভাবে জানতে হবে। আপনি যদি নুতন চালক হন তবে খুব নিরাপদে আগে বাইক চালানো ভালোভাবে শিখুন।

 

সবার আগে আপনাকে যেটা করতে হবে তা হল মোটর সাইকেল চালানোর জন্য যথাযথ নিরাপত্তা সামগ্রী পড়ে নিতে হবে।

protective-gear-for-motor-bike

আপনার সমস্ত নিরাপত্তা সামগ্রী না থাকলেও একটি হেলমেট আপনার জন্য অত্যাবশ্যক । হেলমেট ব্যতিত কখনোই মোটরসাইকেল চালাবেন না। হেলমেটের সাথে সাথে আরও একটি প্রয়োজন হল লম্বা হাতার চামড়ার শার্ট ও প্যান্ট যা আপনাকে নিরাপত্তা দেবে অনেকখানি।

helmet-productreview-bd

অন্য একটি বিষয় সব সময় খেয়াল রাখবেন তা হল স্যান্ডেল পায়ে মোটর সাইকেল চালাবেন না। দুর্ঘটনার সময় যদি এমন পরিস্থিতির উদ্ভব হয় যে মোটর সাইকেলটি ফেলে দিতে হচ্ছে আর এসময় যদি আপনার পায়ে স্যান্ডেল থাকে , তা আপনার আঘাতের পরিমান বাড়িয়ে দিতে পারে। তাই মোটর সাইকেল চালানোর সময় অবশ্যই জুতা বা বুট পড়ে নিবেন । আর এমন বুট পড়বেন যা আপনার জন্য আরামদায়ক ও সস্তিদায়ক।

motorcycle-injuries

আপনি যদি এই প্রথম মোটরসাইকেল চালক হন তবে কোনমতেই প্রথমে বড় সাইজের এবং দ্রুত গতির মোটর সাইকেল নিবেন না। দীর্ঘ দিনের অনুশীলনের মাধ্যমেই আপনার মোটর সাইকেল চালানোর প্রয়োজনীয় দক্ষতা আপনি অর্জন করতে পারবেন যার জন্য আপনাকে অনেক ধৈর্য ধরতে হবে।

 আপনার দক্ষতার বাইরের মোটর সাইকেল কিনলে সেটা নিয়ন্ত্রণ করা আপনার জন্য কঠিন, একইসাথে সেই মোটর সাইকেল চালিয়ে আপনি আরাম ও পাবেন না।

তাই আপনি যখন মোটর সাইকেল কেনার কথা ভাবছেন তখন আগে এটা আগে নিশ্চিত করুন যে এটি চালানোর মতো প্রয়োজনীয় দক্ষতাআপনার রয়েছে। প্রথমে ১৫০ সিসি বা ২৫০ সিসির মোটর সাইকেলের কথা ভাবতে পারেন ।

ওজনের বিষয়টিও মাথায় রাখবেন কারণ ওজন যেন আপনার তুলুনায় খুব বেশী না হয়ে যায়।ধীরে ধীরে আপনি যখন আরও দক্ষ ও পারদর্শী হয়ে উঠবেন তখন আপনি আরও উন্নত আরও দ্রুত গতি সম্পন্ন মোটর বাইকের কেনার কথা বিবেচনায় আনতে পারেন ।

তো আসুন নীচের এই জরুরী টিপসগুলি আমরা সবসময় মনে রাখি

১। মোটর সাইকেলের খুঁটিনাটি জানুন আপনি টেকনিক্যাল মানুষ নাও হতে পারেন কিন্তু মোটর সাইকেলের কিছু মেকানিক্স আপনি সহজেই শিখে নিতে পারেন। প্রায় সব মোটর বাইকের গঠন প্রকৃতি এক তবে বড় মোটর বাইকের ইঞ্জিনটি বেশী বড় আর অনেক বেশীশক্তিশালী হয় ।

মোটর সাইকেলের খুঁটিনাটি জানলে আপনারই সুবিধা । আপনি আরও ভালোভাবে জানতে পারবেন যে একটি বাইক কিভাবে কাজ করে ,কিভাবে চলে আর এসব জানার ফলে আপনার মোটর বাইক সম্পর্কে ভাল ধারনা তৈরি হবে ।

আপনি এর যথাযথ যত্ন বা রক্ষনাবেক্ষন করতে পারবেন যা পক্ষান্তরে আপনার মেকানিকের খরচ বাঁচিয়ে দেবে কারণ আপনি নিজেও তখন মোটর বাইকের প্রয়োজনীয় যন্ত্রাংশ কিনে নিতে পারবেন আর ছোটখাট সমস্যা গুলির সমাধানও করতে পারবেন ।

এছাড়া আপনি যখন আপনার বাইকটির সম্পর্কে ভাল জানবেন আপনি এর সাথে আরও বেশী সম্পৃক্ত হবেন।

২। আপনার পাশের চালকের বিষয়ে সতর্ক থাকুন রাস্তার সব চালক একরকম নয়। অনেক চালক আক্রমণাত্মক ভাবে গাড়ি চালায়।

motorcycle-security-tips-1

কিন্তু আপনার নিরাপত্তা আপনাকেই বজায় রাখতে হবে।

motorcycle-security-tips-2

অন্য চালকের দেখাদেখি আপনি জেদি বা আক্রমণাত্মক ভাবে গাড়ি চালাবেন না কখনোই।

motorcycle-security-tips-3

মোটর সাইকেল চালানোর সময় অবশ্যই আপনি রক্ষণাত্মক ভাবে আপনার মোটর সাইকেল চালাবেন। রাস্তায় আপনার আশেপাশের সব চালকদের ব্যাপারে সজাগ হলে আপনি নিরাপদ থাকবেন আরও বেশী।

৩। মোটর সাইকেল চালানোর সকল কলাকৌশল আয়ত্ত করুন ভাল ও সুচারুরূপে মোটর সাইকেল চালাতে হলে আপনাকে প্রচুর অনুশীলন করতে হবে। এজন্য খোলা জায়গায় বা খালি মাঠে প্রচুর পরিমানে অনুশীলন করবেন।

আপনার অনুশীলনের মাত্রা যত বেশী হবে রাস্তার বিভিন্ন পরিস্থিতির জন্য আপনি তত বেশী নিজেকে তৈরি করতে পারবেন ।

মোটর সাইকেল চালানোর সময় নিরাপদ থাকেতে আপনাকে মুহূর্তের মধ্যে অনেক সিদান্ত নিতে হবে তাই কোন পরিস্থিতিতে কি সিদান্ত নিবেন তা অনুশীলনের মাধ্যমেই ঠিক করুন ।

motorbike-riding

৪। আবহাওয়ার হটাৎ বদলে নিজে প্রস্ততি নিন যেকোনো সময় আবহাওয়ার পরিবর্তন হতে পারে। আপনি হয়ত পরিষ্কার আকাশ আর সুন্দর আবহাওয়ার দেখে ঘর থেকে মোটর বাইক নিয়ে বের হলেন আর তারতোই শুরু হল ঝড় বৃষ্টি।

আবহাওয়ার উপর নির্ভর করে আপনার বাইক চালানোতে পরিবর্তন আনুন। আপনি যদি ঝড় বৃষ্টিতে মোটর বাইক চালাতে স্বাচ্ছন্দ্য না পান তবে তা থামিয়ে রাখুন আর অপেক্ষা করুন ঝড় বৃষ্টি থামা পর্যন্ত।

৫। নিয়মিত মোটর সাইকেল পরীক্ষা করুন প্রতিবার মোটর বাইক নিয়ে বাইরে বের হবার আগে বাইকের সব কিছু ঠিকমতো কাজ করছে কিনা তা ভালোভাবে পরীক্ষা করে নিবেন । ব্যস্ততার কারনে এটি না করা মানে রাস্তায় আরও বেশী ঝুকির মধ্যে পড়া।

চেইন, বেল্ট, ব্রেক ও শ্যাফট সব কিছু যথাযথ পরীক্ষা করে নিশ্চিত হন যে সব ঠিকমতো কাজ করছে আর তা যদি না করেন যেকোনো দুর্ঘটনা ঘটে যেতে পারে যেকোনো সময় ।

তাই আপনার নিজের ও বাইকের নিরাপত্তার জন্য নিয়মিত মোটর সাইকেল পরীক্ষা করুন ।

শেষ কথা হল – মোটর সাইকেল মানেই গতি। আপনি অল্প সময় অনেক ট্রাফিক থাকলেও দ্রুততার সাথে আপনার কাম্য গন্তব্যে সহজেই পৌঁছাতে পারবেন । তাই আপনার মোটরসাইকেল যাতায়াত যাতে নিরাপদ হয় তাই এই সহজ কিন্তু জরুরী বিষয়গুলি মাথায় রাখুন আর অনুশীলন করুন।

Comments

comments

Join the discussion

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।