সুন্দর ত্বক ও চুলের জন্য ঘরেই তৈরি করে ফেলুন এলোভেরা মাস্ক

সুন্দর ত্বক ও চুলের জন্য ঘরেই তৈরি করে ফেলুন ৫ টি চমৎকার এলোভেরা মাস্ক

এখানে সুন্দর ত্বক এবং চুলের জন্য ৫টি আশ্চর্যজনক এলোভেরা মাস্কের বর্ণনা দেয়া হল যা আপনি নিজেই ঘরে বসে তৈরি করে ফেলতে পারবেন।এলোভেরা শুধু স্বাস্থ্য এবং উজ্জ্বল ত্বকের জন্যই নয় বরং ঝলমলে, সতেজ চুলের জন্যও ব্যবহার করা হয়। এলোভেরার গুনের মুল রহস্য রয়েছে এর পুরু, লম্বা, রসালো পাতায়।

পাতার মধ্যের জেল এটাকে জাদুকরি উদ্ভিদে পরিনত করে। এই জেলের মাঝে রয়েছে পানি, লেকটিনস, মান্নানস, পলিস্যাকারাইড বিভিন্ন পরিমানে ভিটামিন এবং মিনারেল ইত্যাদি দরকারি যৌগ। এলোভেরা জেল যে কোন রুপে যে কোন ধরনের ত্বকের উপর ব্যবহার করা যায়।

এলোভেরার বিস্ময়কর উপকার পাবার জন্য নিম্নবর্ণিত পরামর্শগুলি আমারা আপনার জন্য একত্রিত করেছি।

 Want to see where to get Aloevera GEL :কোথায় পাবেন : akhoni.com

ঘরে বসেই এলোভেরার জেল আহরনের পদ্ধতিঃ

ভিডিও দেখুন ঃ 

 

১। সাবধানে এলোভেরা গাছের গোঁড়া থেকে এলোভেরা পাতা কেটে নিতে হবে,-পাতার মাঝখানটি অনেক ঘন হয় এবং ভালো পরিমান জেল ধারন করে।

২। পাতা কেটে ফেলার পর ১৫ মিনিটের জন্য লম্বালম্বি করে রাখতে হবে, যেন সব স্যাপ(sap )  নির্গমন হয়।

৩। সকল স্যাপ  নিষ্কাশন হয়ে গেলে, এলোভেরা পাতা ধুয়ে নিতে হবে যাতে কোন স্যাপ অবশিষ্ট না থাকে।

৪। একটি কাটিং বোর্ড নিয়ে পাতার উভয়প্রান্তের খাঁজ কাটা অংশ কেটে ফেলতে হবে।

এলোভেরা দিয়ে চুলের যত্ন

৫। এরপরে পাতার উপরের সবুজ খোসার স্তর ছিলে ফেলতে হবে। এবং এর স্বচ্ছ জেল কিউব আকারে কেটে নিতে হবে। আপনি পাতাকে লম্বালম্বি ২ ভাগ করে কেটে নিতেও পারেন ও চামচ দিয়ে এর জেল বের করতে পারেন।

যদি আপনি এলোভেরা জেল ঘরে তৈরি করে প্রতিদিন ব্যবহার করতে চান। তাহলে এর জেল আলাদা করে একটি কন্টেনারে রেখে ফ্রিজে সংরক্ষণ করুন। এই পদ্ধতি অবলম্বন করলে,জেল একটি লম্বা সময় পর্যন্ত তাজা থাকবে এবং আপনি প্রয়োজনে পরবর্তীতে ব্যবহার করতে পারেন।

যদি আপনি সুন্দর এবং নিখুঁত ত্বক এবং চুল পেতে চান, তাহলে এই এলোভেরা জেল মাস্ক (এলোভেরা ফেসিয়াল), আপনি যে কোন সময়ে নিজেই ঘরে তৈরি করে ফেলতে পারেন।

এখানে সুন্দর ত্বক এবং চুলের জন্য ৫টি সবচেয়ে ভালো এবং আশ্চর্যজনক এলোভেরা মাস্কের বর্ণনা দেয়া হল যা আপনি নিজেই ঘরে বসে তৈরি করে ফেলতে পারবেন।

 ০১। ক্ষতচিহ্ন এবং রোদে পোড়া দাগের জন্য এলোভেরা ফেসিয়ালঃ

এলোভেরার জেল ৪ টেবিল-চামচ, শসার রস ৬ টেবিল চামচ এবং ২ টেবিল চামচ প্লেইন দই একত্রে ভাল করে মিশিয়ে মিশ্রণটি আপনার মুখে এবং গলায় খুব ভালো করে লাগিয়ে নিন।এলোভেরা ফেসিয়াল মাস্কটি ২০ মিনিট রেখে পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন।আপনার ক্ষতচিহ্ন এবং রোদে পোড়া দাগের অসাধারন পরিবর্তন দেখে আপনি নিজেই অবাক হয়ে যাবেন।

০২। শুষ্ক ত্বকের জন্য  এলোভেরা ফেসিয়াল মাস্কঃ

শুষ্ক ত্বকের পুর্নজীবন ফিরিয়ে আনতে এলোভেরা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ ভুমিকা পালন করে।

  • ৩ টেবিলচামচ এলোভেরা জেলের সাথে ১ টেবিলচামচ গোলাপ তেল মিশিয়ে নিয়ে আপনার মুখের ওপর এই মিশ্রণটি প্রয়োগ করুন। এই প্যাকটি ১০-১৫ মিনিটের জন্য রেখে হাল্কা গরম পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। এবং উপভোগ করুন এলোভেরার সুবিধা।
  • আপনার শুষ্ক ত্বকের সমস্যার জন্য ২ চা চামচ এলোভেরা জেলের সাথে ১ চা চামচ বাদামের তেল এবং গোলাপ জল ব্যাবহার করেতে পারেন।
  • সুস্থ ত্বকের জন্য প্রতিদিন ১ চা চামচ এলোভেরার জেল এবং ২ টেবিল চামচ মধু একত্রে মিশিয়ে প্রয়োগ করতে পারেন।

০৩। ক্ষত এবং ডার্ক স্পটের জন্য এলোভেরা ও লেবুর রসের মাস্কঃএলোভেরা ফেসিয়াল

তাজা লেবুর রসের সঙ্গে মিলে এলোভেরা আশ্চর্যজনক কাজ করে। এমনকি এলোভেরা যখন লেবুর সাথে মিলানো হয় তখন এলোভেরার গুনাগুন আরও বৃদ্ধি পায়। লেবুর রস এবং এলোভেরা উভয়ই আপনার মুখের ক্ষত ও ডার্ক স্পট কমিয়ে সুস্থ ত্বক পেতে সাহায্য করে। এমনকি এই এলোভেরা ফেসিয়াল এর এই দুইটি উপাদান স্টেচ মার্ক এবং রোদে পোড়া দাগও দুর করে। এ ছাড়াও, লেবুর রস সময়ের সাথে সাথে এলোভেরার বাদামি রঙ হয়ে যাওয়াও প্রতিরোধ করে।

এলোভেরা ও লেবুর রসের মাস্ক তৈরির প্রণালী-

সবার প্রথমে ২টি পুরু এলোভেরার পাতা, একটি লেবু, একটি বাটি, একটি ধারালো ছুরি এবং একটি ব্লেন্ডার নিতে হবে। এলোভেরার পাতার ধারালো দিক ২টি ছুরির মাধ্যমে কেটে ফেলতে হবে। এরপর, পাতার উপরের প্রান্ত লম্বালম্বি ভাবে কেটে নিতে হবে।খুব সাবধানে স্বচ্চ জেলগুলি পাতা থেকে বের করতে হবে। এবং একটি বাটিতে এই জেল ও কয়েক ফোঁটা লেবুর রস একত্রিত করতে হবে। একটি ব্লেন্ডারের মধ্যে এই মিশ্রণটি ঢেলে প্রায় এক মিনিটের জন্য ব্লেন্ড করে আপনার মুখে এবং গলায় প্রয়োগ করে ১০-১৫ মিনিটের জন্য রেখে দিন এবং পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন।

০৪। ব্রণ এবং পিম্পলসের  জন্য এলোভেরা বিউটি মাস্কঃ

একটি ডিমের সাদা অংশ, ৪ টেবিল চামচ এলোভেরা জুস, ১ টেবিল চামচ গ্রিন টি এবং ২ ফোঁটা ক্যামোমিল তেল একসাথে বীট করে, আপনার মুখে এই মিশ্রণটি প্রয়োগ করুন এবং এটি ২০ মিনিটের জন্য রেখে ঠাণ্ডা পানি দিয়ে মুখ ধুয়ে ফেলুন।

  • এছাড়া ও আপনি ২ টেবিল চামচ এলভেরার রসের সাথে ১ চা চামচ ট্রি টি তেল একত্রে ব্যাবহার করে ব্রনমুক্ত ত্বক পেতে পারেন।

০৫। পরিষ্কার ত্বকের জন্য এলোভেরা ক্লিন্জিং  মাস্কঃ

এই মাস্কটি তৈরি করতে এক টুকরো পাকা পেঁপে,  অল্প পরিমাণে এলোভেরা জেল, ১ চা চামচ টকদই এবং ১ চামচ মধু নিতে হবে। এই সব উপকরন একসাথে ব্লেন্ডারে দিয়ে ভালোভাবে ব্লেন্ড করে নিতে হবে। এরপর মিশ্রণটি আপনার মুখে এবং গলায় প্রয়োগ করে ১৫ মিনিটের জন্য রেখে কুসুম গরম পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলতে হবে। এই মাস্ক আপনাকে অবিলম্বে একটি পরিস্কার ত্বক দিবে। এছাড়াও আপনি এই উদ্দেশ্যে এলোভেরার রসও ব্যবহার করতে পারেন।

এলোভেরা এখন পর্যন্ত সবচেয়ে সাধারন এবং শক্তিশালী জাদুকারি উদ্ভিদ যা বছরের পর বছর ব্যবহৃত হচ্ছে স্বাস্থ্য ও সৌন্দর্য চিকিৎসার জন্য। সাধারণত এটি ব্যবহৃত হয় বিভিন্ন হারবাল মিশ্রণে, প্রসাধনি এবং ঔষধের মাঝে।

পরের পর্বে আবার আসব এলোভেরা  এর অন্যান্য গুন নিয়ে। যেমন, এলোভেরার শরবত ও একটি ভাল টনিক।পরের পর্বে এলোভেরা দিয়ে চুলের যত্ন কিভাবে করবেন তার পদ্ধতি তুলে ধরব।

Comments

comments

Join the discussion

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।