মেয়েদের মোটরসাইকেল চালানোর ১০টি টিপস

মেয়েদের মোটরসাইকেল চালানোর ১০টি টিপস

 

মোটরসাইকেল চালানো ভালো লাগে না এমন মানুষ কম আছেন। আর মোটরসাইকেল চালানোর ক্ষেত্রে এক অন্যরকম বিস্ময় থাকে যখন কোনো মেয়েকে মোটরসাইকেল চালাতে দেখা যায়। তাহলে চলুন দেখে নেই মেয়েদের মোটরসাইকেল চালানোর ১০টি টিপস

১। স্বাচ্ছন্দ্য মত চালানোঃ

যেকোন মোটরসাইকেল নির্বাচন করার আগে দেখতে হবে, আপনি তা চালাতে স্বাচ্ছন্দ্যবোধ করছেন কিনা। এই ব্যাপারটিকে অনেক মেয়েই পাত্তা দেয় না, তারা যেকোনো একটা মোটরসাইকেল কিনে ফেলে। কিন্তু পরবর্তীতে দেখা যায় যে, তারা তাদের পছন্দকৃত মোটরসাইকেলটি চালাতে মোটেও স্বাচ্ছন্দ্যবোধ করছে না। আর যে মোটরসাইকেলটিতে আপনি স্বাচ্ছন্দ্যবোধ করবেন না, সেটি ব্যবহার করার ক্ষেত্রে আপনার আত্নবিশ্বাস অনেক কম থাকবে। তখন যেকোনো ভ্রমণ আপনার কাছে বিরক্তিকর মনে হবে। নিজেকে জিজ্ঞেস করুন কোন মোটরসাইকেলটিতে আপনি সবচেয়ে স্বাচ্ছন্দ্যবোধ করেন যেমন – ট্যুরিং, স্পোর্টস, অফ – রোড, এন্ডুরো। বেছে নিন আপনার পছন্দের মোটরসাইকেলটি।

২। আরামদায়ক পোশাক পরিধানঃ

মোটরসাইকেল চালানোর সময়টা অন্যান্য মুহূর্তের চেয়ে আলাদা। এসময় আপনার অনুভূতি থাকবে অন্যরকম, তখন প্রতিদিনের পরিধানকৃত পোশাকেও স্বাচ্ছন্দ্যবোধ করবেন না। তাই মোটরসাইকেল চালানোর আগে খেয়াল করুন কোন ধরনের পোশাক তখন আপনার জন্য আরামদায়ক হয়।

৩। দক্ষতা বাড়ানোঃ 

নিজের মোটরসাইকেল চালানোর আগে অবশ্যই আপনাকে তাতে দক্ষ হতে হবে। এক্ষেত্রে আপনি মোটরসাইকেল চালানো শিখার একটি কোর্স ক্লাসে ভর্তি হতে পারেন। নাহলে মোটরসাইকেল চালানোর সময় যেকোনো বিপদের সম্মুখীন হতে পারবেন।

৪। হালকা ব্যাগ বহনঃ

জিন ব্যাগ, ট্রাঙ্ক ব্যাগ, ট্রাঙ্ক এগুলো সবই ভালো তবে অতিরিক্ত প্যাকিং করা ঠিক নয়। ভ্রমণে খুব প্রয়োজনীয় জিনিস ছাড়া বাড়তি কিছু নেবেন না। ভ্রমণে আপনার সাথে যত কম জিনিস থাকবে আপনি তত স্বাচ্ছন্দ্যবোধ করবেন।

৫। কাঙ্ক্ষিত জায়গা সম্পর্কে জানাঃ

সাধারণত আপনার নির্ধারিত ভ্রমণের জায়গার সবকিছু আপনি চিনবেন না। তাই ভ্রমণের পূর্বে সেই জায়গার মানচিত্র সম্পর্কে যতটুকু সম্ভব ধারণা নিন। এছাড়াও ভ্রমণের আগে সেই জায়গার আবহাওয়া সম্পর্কেও জানা উচিত। এতে করে আপনি আপনার পুরো মোটরসাইকেল ভ্রমণটি উপভোগ করতে পারবেন।

৬। বিরতি নেওয়াঃ

আপনার গন্তব্যের দূরত্ব জানা বাঞ্ছনীয়। কেননা মেয়েরা একটানা কয়েক ঘন্টার বেশি মোটরসাইকেল চালাতে পারেন না। তাই যাত্রা বিরতি দরকার, এতে করে ক্লান্তির পরও আপনি আবার যাত্রা শুরু করার উদ্যম ফিরে পাবেন। আধা ঘন্টা বিরতি আপনাকে অনেকটাই প্রফুল্ল করে তুলবে। এসময় পানি, চা বা কফি জাতীয় কিছু খেতে পারেন।

৭। একটি রুটিন তৈরি করুনঃ

সাধারণত গরমের সময় একটু সকাল সকাল যাত্রা শুরু করা উচিত। সকাল সকাল আবহাওয়া মোটামুটি ভালো থাকে এবং একটানা অনেকক্ষণ চালানো যায়। পরে দুপুরের খাবারের জন্য খুব ভালো একটা যাত্রা বিরতি হয়। তবে মেয়েদের নিরাপত্তার জন্য খেয়াল রাখা উচিত যে অন্ধকার হওয়ার আগে হোটেল বা যেকোনো থাকার জায়গা নির্বাচন করতে হবে।

৮। রাস্তাঃ

আপনার গন্তব্যস্থলে পৌছানোর জন্য অবশ্যই আপনাকে সঠিক রাস্তাটি নির্বাচন করতে হবে। অনেকে হাইওয়ে পছন্দ করেন না, কিন্তু হাইওয়েতে গেলে আপনার যাত্রা অনেকটা সহজ ও ঝঞ্ঝালমুক্ত হবে।

৯। সাধারণ নিয়মাবলি জানাঃ

আপনার মোটরসাইকেল যাত্রাটি অবশ্যই দুঃসাহসিক হবে না যদি না তাতে কোনো গরমিল হয়। এজন্য আপনাকে যেকোনো ক্ষেত্রে প্রস্তুত থাকতে হবে। মোটসাইকেলের যেকোনো সমস্যা হলে তা ঠিক করার টুকটাক সরঞ্জাম আপনার সাথে রাখতে হবে। এছাড়াও অন্য যেকোনো সমস্যায় আশেপাশের মানুষের সাহায্য নিতে পারেন। ভ্রমণকারীদের যে কেউই সহায়তা করে।

১০। সবসময় ভালো চিন্তা করুনঃ

অনেকেই আপনাকে বলতে পারে আপনি একা মেয়ে এতদূর মোটরসাইকেল ভ্রমণ করতে পারবেন না। এধরনের কথা মনে নিলে আপনি সত্যি সত্যি ভয় পেতে পারেন। তাই আত্নবিশ্বাসটা ঠিক রাখুন, মনোবল বাড়ান। এছাড়াও দলীয় ভ্রমণের অভিজ্ঞতা নিতে পারেন। মনে শুধু এইটুকু বিশ্বাস রাখুন যে আপনি সব পারবেন।

 

Join the discussion

27 thoughts on “মেয়েদের মোটরসাইকেল চালানোর ১০টি টিপস

  1. I simply wished to thank you very much all over again. I do not know what I would have made to happen without the smart ideas provided by you concerning such industry. It seemed to be a challenging case for me, however , coming across a well-written form you resolved that forced me to leap over fulfillment. I will be grateful for your work and even hope you are aware of a great job you are always getting into training most people thru your blog post. Most probably you’ve never come across any of us.

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না।