বৃষ্টির মধ্যে বাইক চালানোর নিয়ম কানুন

বৃষ্টির মধ্যে বাইক চালানোর নিয়ম কানুন

ভিজা অবস্থায় মোটর বাইক চালাতে আপনি কি একটু ভীত? আপনি যদি একটু সতর্কতা নিয়ে এর কিছু প্রস্তুতি  নিয়ে বৃষ্টির মধ্যে বাইক চালান সেটাও রৌদ্র উজ্জল  কোন সুন্দর দিনের বাইক চালানোর মতোই আনন্দদায়ক আর সহজ হতে পারে। এখানে আমরা সেটাই বলব কিভাবে আপনি বৃষ্টির মধ্যেই নিরাপদে আর আনন্দে বাইক চালাতে পারেন।

বৃষ্টি পড়ছে পথঘাট সব ভিজা। আপনি  কিভাবে এই বৃষ্টির মধ্যে আপনার বাইক নিয়ন্ত্রণ করবেন এটাই ভাবছেন। গতি ধীর করুন, মনোযোগ দিন আর রিলাক্স  হন । দেখবেন সব ঠিক। এটা শুধু পানি , ভয়ঙ্কর কিছু না, তাই না?

বৃষ্টির মধ্যে আনন্দ আর নিরাপদে বাইক চালান আর আপনার ভ্রমন যেন বৃষ্টির পানিয়ে ধুয়ে নিতে না পারে তাই আমাদের এই সহজ কিছু টিপস মনে রাখুন।

বাইক চালকদের জন্য এক্সপার্টদের ১০ টি  নিরাপত্তা টিপস

সঠিক উপকরন

আপনি যদি অনেকক্ষণ বৃষ্টির মধ্যে বাইক চালান আপনি ভিজে যাবেন। তাই রেইন গিয়ার তার দাম যতই হোক না কেন আর এর প্রুস্তুতকারক যতই দাম ঠিক করুক না কেন এটা আপনাকে কিনতে হবে। কিন্তু এর ফলে আপনিও আরামের সাথে কম ভিজে আর সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ হল নিরাপদে বাইক চালাতে পারবেন।

মোটরসাইকেল নির্বাচন করবেন কীভাবে: নতুন চালকদের মোটরসাইকেল নির্বাচন click to read

বৃষ্টির মধ্যে বাইক চালানোর সময় আপনার শরীর ঠাণ্ডা হয়ে যায় আর তাই মনোযোগ বাইকের দিকে রাখা কঠিন হয়ে পড়ে। আর এর ফলে বাইক নিয়ন্ত্রণ করার ক্ষমতাও কমে যায়। তাই বৃষ্টির মধ্যে প্রস্তুতি ছাড়া বাইক চালানো সহজ নয় ও নিরাপদও নয়।

বৃষ্টির মধ্যে বাইক চালানোর প্রথম প্রস্তুতি হল  দৃষ্টি পরিষ্কার রাখা। বৃষ্টির পানিতে সব কিছুই ঝাপসা দেখায়। এমন কি হেলমেট এর ভিতর থেকেও বৃষ্টির পানিতে সব কিছু পরিষ্কার দেখা যায় না। এজন্য রয়েছে আইকন হেলমেট যা বৃষ্টির জন্য বিশেষভাবে ডিজাইন করা হয়েছে। আর এই হেলমেট এ আছে এন্টি ফগ বৈশিষ্ট্য যার ফলে বৃষ্টির পানির ফলে দৃষ্টি ঝাপসা হবে না। আজকের আবহাওয়া ভাল থাকেও কাল হয়ত বৃষ্টি হবে আর বর্ষাকালের কথা তো আছেই ।

বাংলাদেশে জনপ্রিয় ১০ টি ১০০ সিসি মোটর বাইক

আর এই হেলমেট বৃষ্টির মধ্যে সত্যি আপনার দরকার যা খুব ভাল কাজ করে। তাই আজই ইন্সটল করুন আপনার দৃষ্টি যাতে বৃষ্টির মধ্যে ঝাপসা না হয়।  এমনকি ঝড়ের মধ্যেও এটি খুব ভাল। আপনি যদি বৃষ্টির মধ্যে নিয়মিত যাতায়াত করেন তবে হলুদ সিল্ড যুক্তটি বেছে নিন। যারা মটর বাইক রেসে অংশ নেন তারা কিন্তু এটি ব্যবহার করের দৃষ্টি সীমানা পরিষ্কার রাখার জন্য।

সব হেলমেট কিন্তু আপনি বৃষ্টির মধ্যে ব্যবহার করতে পারবেন না। এটা পরীক্ষিত আর এর উপর থেকে পানিটা খুব দ্রুত সরে যায় যার ফলে দৃষ্টি ঝাপসা হয়ে ওঠে না। তবে বলা হয় যে  এটির স্থায়িত্ব খুব বেশী নিয় ।

মোটর বাইক চালানোর সময় আপনার কি কি পরিধান করা উচিৎ Click to read

বিশেষভাবে ডিজাইন করা জ্যাকেটে রয়েছে নরম আরামদায়ক প্যাড আর ভেন্টিলেশান রয়েছে গরমে বাতাস আশা যাওয়ার জন্য। আপনি আপনার চোখের জন্য তো প্রতিরক্ষা চান।

শুধুমাত্র আই গ্লাসেস এর উপর নির্ভর করবেন না। তাই হেলমেট ব্যবহার করবেন। গাড়ি চালকেরা যখন মোটর সাইকেলের সাথে দুর্ঘটনা  ঘটায় তারা প্রায়ই বলে যে তারা দেখতে পায়নি। তাই উজ্জ্বল রঙের সব পোশাক আর হেলমেট নিবেন ।

এটা কোন সমস্যা নয়। আপনি প্রতি বছর সিল্ডটা পরিবর্তন করতে পারেন । তবে আপনার এই হেলমেটের খরচ টা কিন্তু ফেলনা নয়। নিয়মিত ভিজা রাস্তায় চলতে এটার দরকার খুব বেশী।

এর পরের যে বিষয়টি আপনার মনে রাখতে হবে তা হল, আপনার হাত। এটা সবার প্রথমে ঠাণ্ডা হয় আর আপনার বাইকের নিয়ন্ত্রন রাখতে হাত পুরোপুরি সচল রাখা অত্যাবশ্যক। আপনার হাত যদি ঠাণ্ডা হয়ে যায় আর আপনি এতে ভাল বোধ না করেন তবে আপনি বাইক ঠিকমতো চালাতে পারবেন না।  তাই হাত শুকনো ও গরম রাখতে হবে। তাই হাতের জন্য পানি নিরোধক গ্লভস কিনুন এক জোড়া ।

আপনি সব সময় চান বাইকের উপর আপনার পূর্ণ নিয়ন্ত্রণ থাকবে। গ্লভস হাতে থাকলে এটি আপনার হাত কে রক্ষা করবে ভিজে যাওয়া বা ঠাণ্ডা হওয়া থেকে। এটি বৃষ্টি ও আপনার হাতের মধ্যে প্রতিরক্ষা স্তর।

এবার আপনার বাইকের রাইডিং পজিসান এ আসুন। স্ট্যান্ডার্ড বাইক এর ক্ষেত্রে আপনার আরম সিট লেভেলের বারের উপর থাকে আর আর ক্রুজার বাইকের ক্ষত্রে সিট একটু উপরে থাকে। তাই জ্যাকেটটি টাইট করবেন। আর আপনি যখন স্পোর্টস বাইক চালান তখন আপনার হাত দুটি স্লোপ ডাউন করা থাকে। তখন এমন গ্লভস নিবেন যেন ভালোভাবে জ্যাকেটের নীচে ফিট হয়। তখন বৃষ্টির পানি জ্যাকেটের নীচে গেলেও গ্লভসের কারনে হাতের মধ্যে প্রবেশ করতে পারবে না।

একই ব্রান্ডের পানি নিরোধক প্যান্ট ও জ্যাকেটও আপনি পাবেন বাইক চালানোর জন্য । খেয়াল করবেন যে জিপার দিয়ে যেন পানি ঢুকতে না পারে। জিপারটা এমন টাইট ভাবে লাগানো কিনা। আবার কিছু ওয়ান পিস স্যুট আছে যেমন Aerostich Roadcrafter  এর । এটি দুই পিস স্যুটের চেয়ে আপনাকে বেশি গরম আর শুকনো রাখবে বৃষ্টির মধ্যে। কারণ ওয়ান পিসের মধ্য দিয়ে বৃষ্টির পানি আপনার শরীরে প্রবেশের কোন ফাক ফোঁকর ই থাকে না। যা বেশী নিরাপদ।

এছাড়া আরও কিছু ব্র্যান্ড আছে যেমন NikWax বা Scotch Guard  যা আপনাকে বৃষ্টির পানি থেকে বাইক চালানোর সময় রক্ষা করতে কার্যকর।

এরপর আসছে আপনার পায়ের বুটের কথা। সাধারণত বাইক চালানোর বুটগুলি খুব বেশী আরামদায়ক হয় না। আর দেখতেও বেশী সুন্দর হয় না।বুট কেনার সময় লক্ষ্য রাখবেন এটি যেন পানি নিরোধক হয় আর  এর উচ্চতা যেন বেশী হয়। এর মধ্যে উলের মোজা পড়বেন এর ফলে আপনার পা গরম থাকবে আবার আপনি আরামও পাবেন বাইক চালানোর সময়।

উলের মোজার আর একটি ব্যাপার হল এটি ভিজে গেলেও আপনার পা গরম রাখবে।

এখন কথা হল কেন এত কিছু পড়তে হবে? কারন বৃষ্টি আপনার শরীরকে ভিজিয়ে দিলে আপনি যেমন চলন্ত অবস্থাত আরাম বোধ করবেন না তেমনি আপনার বাইকের উপর নিয়ন্ত্রনও ভাল রাখতে পারবেন না। তাই আপনার ভিতরের সব পোশাক গরম আর শুকনো রাখার জন্য বাইরের দিকে আপনার পোশাকের উপর নজর দিতে হবে।

আপনার ঘাড় এর দিকটা শুকনো রাখার জন্য একটি স্কার্ফ পড়তে পারেন। আপনি মোজার জন্য Seal Skinz  এই ব্রান্ডের মোজা কিনতে পারেন যা পা শুকনো রাখেবে। বুটের ভাল একটি ব্র্যান্ড দেখার সময়  বুট ভেন্টিলেটেড কিনা তা দেখে কিনতে পারেন।

মোটর বাইক চালানোর সময় এসব ব্যাপারে সতর্ক থাকুন।

Image Source:wallpapers.ws

Comments

comments

Join the discussion

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।